খুলা | বুধবার | ০২ ডিসেম্বর ২০২০ | ১৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৭ |

Shomoyer Khobor

শয্যা সংখ্যা বাড়ানোর দাবি চিকিৎসক নেতাদের

খুমেক হাসপাতালে শয্যা ভোগান্তিতে রোগীরা, মেঝেতেও ভিড়

রামিম চৌধুরী | প্রকাশিত ১১ নভেম্বর, ২০২০ ০০:৪৯:০০

গরীব ও নিম্ন মধ্যবিত্ত শ্রেণীর মানুষের চিকিৎসার জন্য একমাত্র ভরসা সরকারি হাসপাতাল। বেসরকারি হাসপাতালের বিলের বোঝা টানা সম্ভব না বলেই নানা সমস্যা থাকা সত্ত্বেও তারা চিকিৎসা নিতে আসেন সরকারি হাসপাতালের দোর গোড়ায়। খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বিভাগের ১০ জেলাসহ আশপাশের অনেক এলাকা থেকে চিকিৎসা নিতে আসে রোগীরা। ৫শ’ শয্যার এ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ধারন ক্ষমতার দ্বিগুণ রোগীদের। এতে রোগীদের স্বাস্থ্যঝুঁকিসহ বাড়ছে নানা সমস্যা। এ সমস্যার সমাধানে হাসপাতালের শয্যা সংখ্যা বাড়ানোর পরামর্শ দেন চিকিৎসক নেতারা। 
খুমেক হাসপাতালের প্রতিটি ওয়ার্ড ঘুরে দেখা যায় মেঝেতে রোগীদের ভিড়। ওয়ার্ডগুলোর নির্ধারিত শয্যার দ্বিগুণ রোগী ভর্তি রয়েছেন মেঝেতে। এতে ধুলাবালির কারনে যেমন স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়ছেন রোগীরা তেমনি হাসপাতালের দর্শনার্থী, চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের হাঁটা চলায় অনেক বেগ পেতে হচ্ছে। এদিকে হাসপাতালের প্রতিটি তলায় বারান্দার দুই পাশে রোগীদের ভিড় থাকায় চিকিৎসকরা ঠিকমত চিকিৎসা দিতে পারছেন না। আবার নার্স বা সেবকরা পারছেন না তাদের সঠিক দায়িত্ব পালন করতে। 
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন একাধিক রোগীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, হাসপাতলের মেঝেতে শুয়ে চিকিৎসা নিতে তাদের অনেক কষ্ট হয়। ধারণ ক্ষমতার দ্বিগুণ রোগী থাকায় সিট পাওয়া ও সম্ভব হয় না। এদিকে নিচে শুয়ে থাকার কারনে ধুলাবালিতে শ্বাস বন্ধ হয়ে আসার উপক্রম তাদের। তার সাথে আবার মেঝেতে বিড়ালের উপদ্রব। সব মিলিয়ে অধিক রোগীর কারনে স্বাস্থ্যকর্মীদের সাথে সাথে নানা রকম অসুবিধার মধ্যে থাকেন রোগীরাও। 
এ বিষয়ে হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ মুন্সি মোঃ রেজা সেকেন্দার সময়ের খবরকে বলেন, এ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীদের জন্য শয্যা সংখ্যা বাড়ানো খুবই জরুরি। হাসপাতালে রোগীদের যে অবস্থা এতে চিকিৎসকরাই ঠিকমত চলাচল করতে পারছে না। ৫শ’ শয্যা থেকে ১ হাজার শয্যা করার জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা চলছে। এখানে ১ হাজার শয্যা করতে গেলে নতুন ভবন করা প্রয়োজন। যে সব ভবন রয়েছে তাতে ১ হাজার শয্যা করা সম্ভব না। তাই এ বিষয়ে কার্যক্রম চলছে বলে জানান পরিচালক ডাঃ মুন্সি মোঃ রেজা সেকেন্দার। 
খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ও বিএমএ খুলনার সাধারন সম্পাদক ডাঃ মেহেদি নেওয়াজ সময়ের খবরকে বলেন, এ হাসপাতালে শয্যা সংখ্যা বাড়ানোর জন্য খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ সালাউদ্দিন জুয়েল এবং হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাবনা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু শয্যা সংখ্যা বাড়ানোর জন্য নতুন অবকাঠামো বাড়াতে হবে। নতুন অবকাঠমো ছাড়া কোন শয্যা সংখ্যা বাড়ানো সম্ভব না। এ ব্যাপারে বর্তমানে স্থানীয় সংসদ সদস্য পদক্ষেপ নিয়েছেন। কিন্তু মন্ত্রণালয় থেকে সেই কার্যক্রমের সঠিক কোন নির্দেশনা এখনও আসেনি বলে তিনি জানান। 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ