খুলনা | শুক্রবার | ১৫ জানুয়ারী ২০২১ | ২ মাঘ ১৪২৭ |

Shomoyer Khobor

দীর্ঘ হচ্ছে নারী নির্যাতনের তালিকা

খুলনার মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের হোস্টেল বন্ধ, বেড়েছে ভোগান্তি

এন আই রকি | প্রকাশিত ২৬ নভেম্বর, ২০২০ ০০:২৯:০০


বিভাগের বিভিন্ন জেলা থেকে প্রতি মাসেই খুলনার মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরে আসছে নারী নির্যাতনের নানান অভিযোগ। নিম্নবিত্ত থেকে শুরু করে উচ্চবিত্ত সব শ্রেণির মানুষের হাতে প্রতিনিয়ত নির্যাতনের শিকার হচ্ছে নারীরা। সম্প্রতি করোনার প্রাদুর্ভাবের মধ্যে বেড়েছে নির্যাতন। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য যৌতুকের দাবিতে নির্যাতন, শারীরিক নির্যাতন এবং পারিবারিক নির্যাতন। এদিকে দীর্ঘ ৮ মাস যাবত বিভাগীয় অফিসের হোস্টেল বন্ধ থাকায় নির্যাতনের শিকার মহিলা ও শিশুরা নানান সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। সর্বশেষ তথ্যমতে, মহিলা সহায়তা কর্মসূচি বিভাগীয় কার্যালয়ের মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরে নারী নির্যাতনের অভিযোগ জমা পড়েছে ৩ হাজার ৭৯৩টি। শুধুমাত্র গত সেপ্টেম্বর মাসেই যৌতুকের অভিযোগ এসেছে ৮৮টি। 
নগরীর দৌলতপুর থানার রেলিগেটে অবস্থিত মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের বিভাগীয় মহিলা সহায়তা কর্মসূচির কার্যালয়। খুলনা বিভাগের ১০টি জেলায় বিভিন্ন স্থানে নির্যাতনের শিকার, অসহায়, দুস্থ নারীদের আইনী সহায়তা প্রদান, নারী নির্যাতন প্রতিরোধ সেল এবং নির্যাতিত নারীদের সাময়িক অবস্থানের জন্য এখানে আবাসন কেন্দ্র (হোস্টেল) রয়েছে। অধিদপ্তরের কাজ হল প্রতিরোধ সেলে নির্যাতনের শিকার নারীদের অভিযোগ গ্রহণ, কাউন্সেলিং এর মাধ্যমে বিরোধ নিষ্পত্তি, দেনমোহর, স্ত্রীর ভরণ-পোষণ, খোরপোষ ও সন্তানের ভরণ-পোষণ আদায় করা হয়। 
সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, নির্যাতিত নারীসহ সন্তানদের ভরণ-পোষণের জন্য ৬ মাসের সুবিধা থেকে বঞ্চিত হোস্টেলে থাকা ভুক্তভোগীরা। গত মার্চ মাস থেকে হোস্টেলে থাকা সকলকে ছুটি দেওয়া হয়েছে। 
সরিজমিনে গিয়েও হোস্টেলটি তালাবদ্ধ ভাবে দেখা যায়। কর্মকর্তারা জানান, হোস্টেলটিতে ৩০ জন নারী এবং প্রত্যেকের জন্য ২টি করে শিশুর থাকা খাওয়া ও ভরণ পোষণের সুযোগ রয়েছে। তবে হোস্টেলের খাবার সরবরাহকারীদের চুক্তি শেষ হওয়ায় জটিলতা শুরু হয়েছে। এছাড়া করোনার কারণেও দীর্ঘদিন হোস্টেলটি পরিচালনা করা হয়নি। 
অধিদপ্তরের সূত্রমতে, বিভাগের ১০ জেলা থেকে এখন অবধি প্রাপ্ত নারী নির্যাতনের অভিযোগ ৩ হাজার ৭৯৩টি। সালিশীর মাধ্যমে অর্থ আদায় হয়েছে ১ কোটি ৮৩ লাখ টাকা। করোনার কারণে নারী নির্যাতন তুলনামূলক ভাবে বাড়ছে। বিশেষ করে আর্থিক সংকটই নির্যাতনের প্রধান কারণ হিসেবে পর্যালোচনা করে দেখা গেছে। যার দরুণ সম্প্রতি যে নারী নির্যাতনের অভিযোগগুলো এসেছে এর মধ্যে সবথেকে বেশি যৌতুকের অভিযোগ। সম্প্রতি নারী নির্যাতনের অভিযোগের মধ্যে যৌতুকের অভিযোগ এসেছে ৮৮টি, শারীরিক ও মানষিক নির্যাতনের অভিযোগ ২৫টি, পারিবারিক নির্যাতনের অভিযোগ ১২টিসহ রয়েছে বিবাহ বিচ্ছেদসহ নানান অভিযোগ। 
এ বিষয়ে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের বিভাগীয় মহিলা সহায়তা কর্মসূচির কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক (কেঃডেঃ) সাহেলা পারভীন বলেন, করোনার সময় নির্যাতনের অভিযোগ বেড়েছে। সম্প্রতি যৌতুকের দাবির কারণে নারী নির্যাতন বেশি হচ্ছে। ইজিবাইক চালক, দিন মজুর, ডাক্তারসহ নানা শ্রেণি পেশার মানুষের হাতেই নির্যাতন হচ্ছে নারীরা। তিনি আরও বলেন, ইতোমধ্যে হোস্টেলের খাবার সরবরাহকারীর জন্য টেন্ডার বিজ্ঞপ্তি দিয়েছি। সকল কার্যক্রম শেষ হলে খুব দ্রুতই হোস্টেল চালু করব।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ





পাকিস্তানের টেস্ট দলে ৯ নতুন মুখ

পাকিস্তানের টেস্ট দলে ৯ নতুন মুখ

১৫ জানুয়ারী, ২০২১ ১৯:০৭


দ্রুততম মানব ইসমাইল, মানবী শিরিন

দ্রুততম মানব ইসমাইল, মানবী শিরিন

১৫ জানুয়ারী, ২০২১ ১৮:৩৪




দ্বিতীয় ধাপে ৬০ পৌরসভার ভোট কাল

দ্বিতীয় ধাপে ৬০ পৌরসভার ভোট কাল

১৫ জানুয়ারী, ২০২১ ১৭:২১