খুলনা | শুক্রবার | ১৫ জানুয়ারী ২০২১ | ২ মাঘ ১৪২৭ |

Shomoyer Khobor

নগরীতে অকেজো সবগুলো সিগন্যাল পয়েন্ট

এনালগ সিস্টেমে চলছে ট্রাফিক বিভাগের কার্যক্রম

এন আই রকি | প্রকাশিত ০৩ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:৩৩:০০

মহানগরী খুলনার ট্রাফিক বিভাগ চলছে এনালগ সিস্টেমে। নগরীর একাধিক পয়েন্টে সিগন্যাল লাইট থাকলেও দীর্ঘদিন ধরে সেগুলো রয়েছে অচল। ফলে হাতের ইশারায় যানবাহন নিয়ন্ত্রণ করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে ট্রাফিক বিভাগের। ডিজিটাল বাংলাদেশের দিকে দেশ এগিয়ে গেলেও খুলনার ট্রাফিক বিভাগ পিছিয়ে রয়েছে। 
সরেজমিনে নগরীর ১৬টি ট্রাফিক পুলিশের সিগন্যাল পয়েন্টে ঘুরে দেখা যায়, সবগুলো সিগন্যাল লাইট অকেজো হয়ে পড়ে আছে। সর্বশেষ কবে লাল-সবুজ বাতি জ্বলেছে সেটাও কেউ বলতে পারে না। অনেক সিগন্যাল পয়েন্টের লাইট ভেঙে গেছে। আবার কোথাও সিগন্যাল পয়েন্টের ষ্ট্যান্ড রাস্তায় পড়ে রয়েছে। 
জানা যায়, নগরীর গুরুত্বপূর্ণ ১৬টি পয়েন্টে ১৯৮৪ সালে সিগন্যাল লাইট স্থাপন ও দেখাশুনা করা শুরু করে কেসিসি। পয়েন্টগুলো হচ্ছে দৌলতপুর বাস স্ট্যান্ড, নতুন রাস্তা মোড়, জোড়াগেট, শিববাড়ি মোড়, পাওয়ার হাউস মোড়, ফেরী ঘাট, ডাকবাংলো, পিকচার প্যালেস, সদর থানার মোড়, সদও হাসপাতালের মোড়, সার্কিট হাউজ মোড়, হাজী মহসিন রাস্তার মোড়, পিটিআই মোড়, রয়েল মোড়, শান্তিধাম মোড় এবং ময়লাপোতা মোড় (বঙ্গবন্ধু স্কয়ার)। ২০০৭ সাল পর্যন্ত কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে এগুলো মেরামত, বিদ্যুৎবিল পরিশোধসহ দেখাশুনা করেন। কিন্তু সময়ের তাগিদে নতুন স্পটে সিগন্যাল লাইট স্থাপন করা জরুরি হওয়া, আধুনিক মেশিন স্থাপন এবং দেখভালের ব্যয় বেড়ে যাওয়ায় সিগন্যাল লাইটের প্রতি আগ্রহ হারায় সিটি কর্পোরেশন। 
এদিকে ট্রাফিক বিভাগের সূত্রে জানা যায়, পর্যাপ্ত পরিমাণ জনবলের অভাব রয়েছে। যানবাহন প্রতিনিয়ত বেড়ে চলেছে। বিশেষ করে ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক, মোটরসাইকেল, রিকশা, প্রাইভেটকার, ভ্যান নিয়ন্ত্রন করতে দিনের বেলায় হিমশিম খেতে হচ্ছে। খুলনায় ৭৫ জন সার্জেন্ট থাকার কথা থাকলেও রয়েছে মাত্র ২৬ জন, এটিএসআই ৫০ জনের বদলে আছে ৩৯ জন, কনস্টেবল ২৫৬ জনের বদলে আছে ১৯৭ জন। 
খুলনা সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) জাহিদ হোসেন শেখ বলেন, সবগুলো সিগন্যাল পয়েন্ট অকেজো। এইসব মেশিন ঠিক না করে আধুনিকায়ন করতে হবে। এছাড়া ১৬টি পয়েন্ট দিয়ে নগরীর যানজট নিরসন সম্ভব নয়। বর্তমান পরিপ্রেক্ষিতে ৩৫ পয়েন্টে সিগন্যাল লাইট স্থাপন করা প্রয়োজন। 
খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের উপ-কমিশনার রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ জানান, দীর্ঘদিন সিগন্যাল লাইট না থাকায় সমস্যা বেড়েছে। যানজট নিয়ন্ত্রণেও সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। আধুনিকায়ন নগরায়নে সিগন্যাল লাইট না থাকাটা অসামঞ্জস্য। 
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ





পাকিস্তানের টেস্ট দলে ৯ নতুন মুখ

পাকিস্তানের টেস্ট দলে ৯ নতুন মুখ

১৫ জানুয়ারী, ২০২১ ১৯:০৭


দ্রুততম মানব ইসমাইল, মানবী শিরিন

দ্রুততম মানব ইসমাইল, মানবী শিরিন

১৫ জানুয়ারী, ২০২১ ১৮:৩৪




দ্বিতীয় ধাপে ৬০ পৌরসভার ভোট কাল

দ্বিতীয় ধাপে ৬০ পৌরসভার ভোট কাল

১৫ জানুয়ারী, ২০২১ ১৭:২১