খুলনা | শুক্রবার | ০৭ মে ২০২১ | ২৪ বৈশাখ ১৪২৮ |

Shomoyer Khobor

অর্জমার সাফল্যের পেছনে মা ও বোনের সহযোগিতা

‘পণ্যের প্রচার এবং প্রসার দ্রুত হলে দেশীয় গহনা রপ্তানি করাও সম্ভব’

সুরাইয়া ইসলাম মীম  | প্রকাশিত ১১ ফেব্রুয়ারী, ২০২১ ০০:২০:০০

নিজেকে সাজাতে-নারীর পছন্দের তালিকায় শীর্ষ অনুষঙ্গ গহনা। সোনা, রুপা, হীরার গহনার পাশাপাশি অন্যান্য উপাদানে তৈরি গহনাও জনপ্রিয় বহু বছর আগে থেকেই। আমাদের দেশে দিনে দিনে বৃদ্ধি পেয়েছে সম্পূর্ণ হাতে তৈরি গহনার চাহিদাও। এই চাহিদাকে কাজে লাগিয়ে নর্দার্ন ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এন্ড টেকনোলজি খুলনার শিক্ষার্থী আফিফা সুলতানা অর্জমা তার প্রতিষ্ঠান “প্রত্যাশা”-এর মাধ্যমে হাতে তৈরি গহনা পৌঁছে দিচ্ছেন খুলনা শহরসহ বাংলাদেশের সকল প্রান্তের ফ্যাশন সচেতন নারীদের কাছে। 
আফিফার গহনার প্রতি বরাবরই একটি ভালো লাগা কাজ করতো। কিন্তু সেই ভালো লাগা থেকে আজ বাণিজ্যিক প্লাটফর্মে নিজের পরিচয় তৈরি হয়েছে একজন উদ্যোক্তা হিসেবে। বিভিন্ন ধরনের গহনা দেখার পর নিজে নতুন নতুন গহনার ডিজাইন তৈরি করে গলার হার, কানের ঝুমকা,  হাতের চুড়ি সব কিছুই ছবি আঁকতেন আফিফা। এরপর সেই কল্পনার ডিজাইনগুলো বাস্তবে রূপ দিতেন আফিফা।
আফিফা বলেন, কাঠ সুতা এবং বিভিন্ন ধরনের মেটাল দিয়ে তৈরি করি এই হ্যান্ড মেইড গহনা। মাত্র ৩০০ টাকা দিয়ে কিছু কাঠ সুতা এবং মেটাল কিনে আমার এই পথ চলা শুরু। কাজের শুরুতে অনেক জায়গা থেকে অনেক রকম বাধা এসেছে। একটা ভদ্র শিক্ষিত পরিবারের মেয়ে হয়ে এসব গহনা বানায়। তা আবার মানুষের বাসায় গিয়ে পৌঁছে দিয়ে আসে এরকম অনেকের হাসি ঠাট্টা বিদ্রুপ এর সম্মুখীন হয়েছি।
আজকের এই উদ্যোক্তা হওয়ার পেছনে সবচেয়ে বেশি সহযোগিতা করেছেন তার মা এবং বোন রাজিয়া সুলতানা রজনীর কাছ থেকে। সব সময় তাকে সাহস জুগিয়েছেন তার বোন, অনুপ্রেরণা দিয়েছেন। এছাড়াও অনেক বেশি সহযোগিতা পেয়েছেন তার বন্ধু বান্ধবদের থেকে।
আফিফা বলেন, প্রত্যাশা আমার এমন একটা প্রতিষ্ঠান এটির মাধ্যমে আমি নিজের ভালো লাগাকে নিজের পরিচয় করে নিতে পেরেছি। আমার স্বপ্ন, আমার এই গহনা তৈরির প্রতিভাকে সকলের মধ্যে তুলে ধরে নিজের প্রতিষ্ঠানকে আরো পরিচিত করবার। নিজে একজন সফল গহনা ডিজাইনার হিসেবে সফলতা অর্জন করা আমার অনেক বড় স্বপ্ন। 
নারী উদ্যোক্তাদের উদ্দেশ্যে আফিফা বলেন, সফলতা অর্জনের রাস্তায় অনেক বাধা আসবে কিন্তু থেমে যাওয়া যাবে না। একজন নারী সব বাধা পেরিয়ে তার স্বপ্নের জন্য এগিয়ে যেতে পারে। অর্জন করতে পারে সফলতা। মানুষের কটূক্তি তাচ্ছিল্যতা সব কিছু কে দৃষ্টিগোচর করে নিজের স্বপ্নের দিকে একাগ্রতা দেখালেই সফলতা আসবেই। দিন দিন এই গহনার বাজার উন্নত হচ্ছে, চাহিদা বাড়ছে। তরুণীদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে এখন হাতে তৈরি গহনা। এই পণ্যের প্রচার এবং প্রসার দ্রুত হলে এই পণ্য রপ্তানি করাও সম্ভব। এক সময় বিয়ের কনের সাজেও শোভা পাবে হাতে তৈরি গহনা, সেদিন আর বেশি দূরে নয়।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ