খুলনা | শনিবার | ১৭ এপ্রিল ২০২১ | ৪ বৈশাখ ১৪২৮ |

Shomoyer Khobor

মহানগরীতে নিয়মবহির্ভূত অট্টালিকা নির্মাণে হিড়িক : বাড়ছে ঝুঁকি

এস এম আমিনুল ইসলাম | প্রকাশিত ২৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১ ০০:১০:০০

ইমারত নির্মাণ বিধিমালা তোয়াক্কা না করে গড়ে তোলা হচ্ছে বড় বড় অট্টালিকা। এছাড়া ওই সব অট্টালিকার মালিকেরা নিজেদের সুবিধার্থে ফুটপাথ ও সড়কের বেশ কিছু জায়গা দখল করে নির্মাণ করছেন র‌্যাম্প (গাড়ি ওঠানামার ঢালু পথ)। ফলে বসবাসের জন্য দিন দিন ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠছে বিভাগীয় শহর খুলনা।
কর্পোরেশন সূত্রে জানা গেছে, খুলনা সিটি কর্পোরেশন (কেসিসি)-র মোট আয়তন ৪৫ দশমিক ৬৫ বর্গ কিলোমিটার। যার মধ্যে ৩১টি ওয়ার্ড রয়েছে। ৩১টি ওয়ার্ডে ৬৪০ দশমিক ৬৮ কিলোমিটার সড়ক রয়েছে। এছাড়া ১৭ দশমিক ৬২ বর্গমাইল আয়তনের এই অধিক্ষেত্রে রয়েছে প্রায় ৭৫ থেকে ৮০ হাজার হোল্ডিং। 
কেডিএতে নিয়ম রয়েছে ১৯৯৬ সালের ইমারত নির্মাণ বিধিমালা অনুযায়ী সামনে ৫ ফুট ও ভবনের তিন পাশে ৩ ফুট জায়গা রেখে ভবন নির্মাণ করতে হবে। কিন্তু এসব নিয়ম-কানুন না মেনেই নগরীতে বড় বড় অট্টালিকা নির্মিত হয়েছে। এছাড়া প্রতিনিয়ত চলমান রয়েছে ৬ তলা, ৭ তলা ও ৯ তলা থেকে আরও উঁচু উঁচু বহুতল নির্মাণ কাজও। অন্যদিকে বেশির ভাগ ভবন মালিক বাড়ির সামনে অবৈধভাবে র‌্যাম্প নির্মাণ করায় সড়কগুলো সংকুচিত হয়ে পড়ছে। এতে পানি নিষ্কাশনের নালাও সিমেন্টের নিচে ঢাকা পড়ছে। 
নগরীতে বহুতল ভবনের পাশাপাশি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বেসরকারি মেডিকেল হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোতে গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা না থাকায় শহরের বেশীর ভাগ সময় লেগে থাকে যানজট। তাছাড়া পথচারীদের চলাচলেও রয়েছে প্রতিবন্ধকতা।
নগরবাসীর বাসিন্দাদের অভিযোগ, সাধারণত বহুতল ভবন নির্মাণে সড়ক থেকে নিয়ম অনুযায়ী জায়গা ছাড়তে হয়। কিন্তু বাস্তবে তা মানা হচ্ছে না। অনেক ভবনে নিজস্ব পার্কিং ব্যবস্থা না থাকায় গুরুত্বপূর্ণ সড়কে যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং করা হচ্ছে। কিছু কিছু ভবন মালিক আবার বাড়ির সামনে সড়ক ও ফুটপাত অবৈধভাবে দখল করে র‌্যাম্প নির্মাণ করছেন। ফলে সড়কগুলো সংকুচিত হয়ে পড়ছে। যা জনসাধারণের চলাচলে চরম ভোগান্তি তৈরি হচ্ছে। 
সুজন-এর জেলা সম্পাদক কুদরত-ই-খুদা সময়ের খবরকে বলেন, আইন আছে, বাস্তবায়ন নেই। আইনের যথাযথ প্রয়োগ করতে হবে। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষে গাফিলতিতে তা হচ্ছে না। কেডিএ’র এসব বাড়ির মালিকের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া উচিত। অন্যথায় নগরী হয়ে উঠবে চরম ঝুঁকিপূর্ণ।
খুলনা সিটি কর্পোরেশনের স্টেট অফিসার নুরুজ্জামান তালুকদার সময়ের খবরকে বলেন, এসব অবৈধ র‌্যাম্প উচ্ছেদ ও সড়কে পার্কিং বন্ধে অভিযান পরিচালনা করা হবে।
খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের অথরাইজড অফিসার মুজিবুর রহমান সময়ের খবরকে বলেন, কেডিএ’র অধিক্ষেত্রে নিয়ম বহির্ভূত নির্মিত বাড়ির খেলাপী অংশ ভেঙে ফেলা হচ্ছে। প্রতি সপ্তাহে অন্তত ৭ থেকে ৮টি বাড়ির খেলাপী অংশ ভাঙা হচ্ছে। জনস্বার্থে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।
কেএমপি’র উপ-কমিশনার (ট্রাফিক) মোঃ তাজুল ইসলাম সময়ের খবরকে বলেন, যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং করে যানজট সৃষ্টি করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বার পঠিত

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ




ছুরিকাঘাতে ফুফাতো ভাইকে হত্যা 

ছুরিকাঘাতে ফুফাতো ভাইকে হত্যা 

১৭ এপ্রিল, ২০২১ ১৭:০৭






করোনামুক্ত হলেন এমপি চুমকি

করোনামুক্ত হলেন এমপি চুমকি

১৭ এপ্রিল, ২০২১ ১৬:১৫