খুলনা | শনিবার | ১৭ এপ্রিল ২০২১ | ৪ বৈশাখ ১৪২৮ |

Shomoyer Khobor

জেলা যুবদলের ইউনিটগুলোতেও স্থবিরতা

ইউনিট কমিটি গঠনে মতনৈক্য নগর যুবদলের সভাপতি-সম্পাদকের!

আশরাফুল ইসলাম নূর  | প্রকাশিত ০৩ এপ্রিল, ২০২১ ০০:৩৭:০০

বিএনপি’র ভ্যানগার্ড খ্যাত যুবদলের ইউনিট কমিটিগুলোর স্থবিরতা দীর্ঘদিনের। আন্দোলনমুখী কর্মসূচি না থাকলেও ঘর গোছানোর কাজটি দৃশ্যমান নয় দলটির। ইউনিট কমিটি গঠন করতে গিয়ে মহানগর যুবদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মধ্যকার মতনৈক্য প্রকাশ্যে এসেছে। নগরীর ইউনিট কমিটিসমূহ দ্রুত ও সুষ্ঠুভাবে গঠন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে যুবদলের কেন্দ্রীয় সিনিয়র সহ-সভাপতি মোরতাজুল করিম বাদরুকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। স¤প্রতি নগর যুবদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পৃথক ভাবে ইউনিট কমিটি জমা দিয়েছেন কেন্দ্রে।
এ পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৮ মার্চ সংগঠনের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোরতাজুল করিম বাদরুকে যুবদলের মহানগর শাখার ইউনিট সমূহের কমিটি গঠনে খুলনা বিভাগীয় টীম ও নগর সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের সাথে সমন্বয়কের দায়িত্ব দেন দলটির কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুল আলম নীরব ও সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু। মহানগরীর পাঁচটি থানা ও দু’টি ইউনিয়ন রয়েছে।
নগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হুদা চৌধুরী সাগর বলেন, যুবদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক এবং বিএনপি’র বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও মহানগর শাখার সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু ও দলের কেন্দ্রীয় নেতা রকিবুল ইসলাম বকুলের নির্দেশে বিগত আন্দোলন-সংগ্রামে রাজপথের পরীক্ষিত ও ত্যাগী, সক্রিয়দের মূল্যায়ন করে ইউনিট কমিটিগুলো গঠনের উদ্যোগ নিয়েছি। সে অনুযায়ী ইউনিট কমিটিগুলো কেন্দ্রে জমা দিয়েছি। রাজপথে সক্রিয়, ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতা-কর্মীদের মূল্যায়নে সভাপতি মাহবুব হাসান পিয়ারুর সাথে কোন মতনৈক্য থাকতে পারে না বলে দাবি করেন তিনি।
দলীয় সূত্রমতে, ২০১৭ সালের ২৭ এপ্রিল নগর ও জেলা যুবদলের আংশিক কমিটি অনুমোদন দেন কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুল আলম নীরব এবং সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু। নগর যুবদলে মাহাবুব হাসান পিয়ারুকে সভাপতি ও সাবেক ছাত্রনেতা নাজমুল হুদা চৌধুরী সাগরকে সাধারণ সম্পাদক করে ৫ সদস্যের কমিটি দেয়া হয়েছিল। অপর দিকে, জেলা যুবদলে এসএম শামিম কবীরকে সভাপতি ও সাবেক ছাত্রনেতা ইবাদুল হক রুবায়েতকে সাধারণ সম্পাদক করে অনুরূপ আংশিক কমিটি দেয় কেন্দ্র। পরের বছর ২০১৮ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর মহানগর যুবদলের ২২৫ সদস্যবিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন করেন কেন্দ্রীয় সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক। অন্যদিকে, জেলা যুবদলে ২০১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। বিএনপি’র ভ্যানগার্ড খ্যাত বৃহৎ এ সংগঠনটিতে সম্মেলন ছাড়াই প্রেসবিজ্ঞপ্তির মধ্যদিয়ে কমিটি অনুমোদন করে আসছে কেন্দ্র।
সংগঠনের জেলা সাধারণ সম্পাদক এবাদুল হক রুবায়েত বলেন, জেলার নয়টি উপজেলা ও দু’টি পৌরসভার কমিটি কেন্দ্রে জমা দিয়েছি। তারপর বিভাগীয় টীমসহ সংশ্লিষ্টদের মতামত নিয়ে যাচাই-বাছাইও করা হয়েছে। যেকোন মুহূর্তে ইউনিট কমিটিগুলো কেন্দ্র থেকে দেয়া হতে পারে। তিনি আরও বলেন, যুবদলে কোন স্থবিরতা নেই। কমিটি দেয়া হলে আরও সরব হবে জেলা যুবদল।
সংগঠনের কেন্দ্রীয় সিনিয়র সহ-সভাপতি মোরতাজুল করিম বাদরু বলেন, শিগগিরই মহানগর যুবদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে নিয়ে বিভাগীয় টীমকে সাথে নিয়ে বসবো। আলোচনার মধ্যদিয়ে মতনৈক্য নিসরণ হবে বলে আশাবাদী তিনি।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ




ছুরিকাঘাতে ফুফাতো ভাইকে হত্যা 

ছুরিকাঘাতে ফুফাতো ভাইকে হত্যা 

১৭ এপ্রিল, ২০২১ ১৭:০৭






করোনামুক্ত হলেন এমপি চুমকি

করোনামুক্ত হলেন এমপি চুমকি

১৭ এপ্রিল, ২০২১ ১৬:১৫