খুলনা | সোমবার | ২২ জুলাই ২০২৪ | ৭ শ্রাবণ ১৪৩১

ফেসবুক ভেরিফাই করতে কী কী লাগে?

খবর প্রতিবেদন |
০৩:১২ পি.এম | ১৫ জানুয়ারী ২০২৪


অনেকের ফেসবুক প্রোফাইল ও পেজে ব্লু টিক দেখতে পাবেন। এই ব্লু টিক হল এক ধরনের যাচাইকরণ, যে অ্যাকাউন্টটি আসল। সেলিব্রিটিদের নামে হাজার একটা অ্যাকাউন্ট থাকে, কিন্তু আপনি সঠিক অ্যাকাউন্টটিই ফলো করছেন কি না, তা এই ব্লু টিক দেখেই বুঝতে পারেন।

কয়েকদিন আগে পর্যন্তও নামের পাশে নীল টিক জ্বলজ্বল করতে দেখলেই আপনি বুঝে যেতেন, যে সেই অ্যাকাউন্টটিতে প্রচুর ফলোয়ার। তাই সেই সোশ্যাল মিডিয়া কোম্পানি থেকে তাকে ব্লু টিক দিয়েছে। কিন্তু এখন তা হয় না। আপনি চাইলেই আপনার নামের পাশেও রাখতে পারেন ব্লু টিক। কীভাবে করবেন, সেটাই ভাবছেন তো? চলুন দেখে নেওয়া যাক।

নীল টিক বা ব্লু টিক পেতে যা দরকার
১. অ্যাকাউন্টটি আসল এবং সক্রিয় হওয়া উচিত।

২. অ্যাকাউন্টের নাম এবং প্রোফাইল পিকচার সঠিক হওয়া প্রয়োজন।

৩. অ্যাকাউন্টের সঙ্গে যুক্ত ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠানটি কোনও নামী এবং স্বীকৃত কোম্পানি হতে হবে।

৪. অ্যাকাউন্টের একটি বৈধ নথি থাকতে হবে, যা তার পরিচয় এবং ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠানের বৈধতা প্রকাশ করবে।

৫.ব্লু টিকের জন্য আবেদন করতে, অ্যাকাউন্টের মালিককে ফেসবুকে একটি ফর্ম পূরণ করতে হবে এবং প্রয়োজনীয় তথ্য আপলোড করতে হবে। ফেসবুক সেই আবেদনটি পর্যালোচনা করবে এবং যোগ্য মন করলে তবেই অ্যাকাউন্টটিকে একটি নীল টিক দেওয়া হবে।

ফেসবুক ভেরিফায়েড হওয়ার সুবিধা জানুন

১. ব্লু টিক থাকলে অ্যাকাউন্টটি আসল মনে হয়।

২.এটি অ্যাকাউন্টটিকে আরও বেশি মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়।

৩.অ্যাকাউন্টটিকে আরও নির্ভরযোগ্য করে তোলে।

কীভাবে ফেসবুকে ব্লু টিক পাবেন?

১. প্রথমে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে যান এবং ‘সেটিংস’-এ যান।

২. ‘অ্যাবাউট’-এ যান।

৩. সেখান থেকে ‘অ্যাকাউন্ট ভেরিফিকেশন’-এ যান।

৪. এবার ‘রিকোয়েস্ট ভেরিফিকেশন’ অপশনটি দেখতে পাবেন, তাতে ক্লিক করুন।

৫. এবার আপনাকে একটি ফর্ম পূরণ করতে হবে, যাতে আপনার নাম, ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠানের নাম, ওয়েবসাইট, যোগাযোগের তথ্য এবং অন্যান্য বিশদ দিতে হবে।

৬.আপনাকে অবশ্যই একটি বৈধ নথি আপলোড করতে হবে, যা আপনার পরিচয় এবং আপনার ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠানের প্রমাণপত্র। ফেসবুক আপনার আবেদন পর্যালোচনা করবে এবং আপনি যোগ্য হলে আপনাকে একটি ব্লু টিক দেওয়া হবে।

প্রিন্ট

আরও সংবাদ