খুলনা | বৃহস্পতিবার | ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯ ফাল্গুন ১৪৩০

চট্টগ্রামকে গুঁড়িয়ে শীর্ষস্থান মজবুত করল রংপুর

ক্রীড়া প্রতিবেদক |
০৫:৩১ পি.এম | ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪


বিপিএলে অভিষেক ম্যাচ খেলতে নেমেই মিরপুরে ঝড় তুললেন নিউজিল্যান্ডের অলরাউন্ডার জিমি নিশাম। ইনিংসের শেষ দিকে তার ঝোড়ো ফিফটির সুবাদে চলতি আসরে প্রথম কোনো দল হিসেবে দুইশো ছাড়ানো সংগ্রহ দাঁড় করায় রংপুর রাইডার্স। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ২১১ রানের সংগ্রহ পায় রংপুর। ব্যাটিংয়ের পর বল হাতেও সফল হলেন নিশাম। এ ছাড়া অলরাউন্ড নৈপুণ্য দেখালেন সাকিব আল হাসান। রংপুরময় দিনে বেশিদূর এগোতে পারেনি চট্টগ্রাম চ্যালঞ্জার্স। রংপুর রাইডার্সের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫৮ রানে থামে চট্টগ্রাম। তাতে ৫৩ রান জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ স্থান শক্ত করলো রংপুর।

এদিন আগে ব্যাট করতে নেমে আজ উদ্বোধনী জুটিতেই স্কোরবোর্ডে ৬১ রান তুলেছে রংপুর। রনি তালুকদারকে সঙ্গে নিয়ে দ্রুত রান তুলেছেন রংপুরের হয়ে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা হেনড্রিকস। ১৭ বলে ২৪ রান করে রনি আউট হলেও নিজের প্রথম ম্যাচেই আজ ফিফটি তুলে নিয়েছেন প্রোটিয়া ওপেনার।

দক্ষিণ আফ্রিকান এই ব্যাটার আজ দ্বিতীয় উইকেটে সাকিব আল হাসানের সঙ্গেও গড়েছিলেন ৩২ বলে ৬০ রানের জুটি। তবে ১৬ বলে ৩ চার আর ১ ছয়ে ২৭ রান করে সাকিব ফিরলে ভাঙ্গে এ জুটি। এরপর হেনড্রিকস ফেরেন ৪১ বলে ৫৮ রান করে।

দলীয় ১২২ রানে হেনড্রিকস ফেরার পর রংপুরকে বড় সংগ্রহ এনে দিয়েছেন আরেক বিদেশি ব্যাটার জেমস নিশাম। আর তাকে যোগ্য সঙ্গ দিয়েছেন সোহান। ঝড়ো ইনিংসে নিশাম ২৬ বলে ৫ চার আর ৩ ছয়ে করেন ৫১ রান। আর ২১ বলে ৩১ রান করেন সোহান। এ দুজনের অপরাজিত ইনিংসের সুবাদে ২০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ২১১ রানের সংগ্রহ গড়ে রংপুর।

রংপুরের রানপাহাড় তাড়া করতে নেমে শুরুতেই ধুঁকতে থাকে চট্টগ্রাম। দলীয় ৫০ রানের মধ্যে তিন ব্যাটারকে হারিয়ে চাপে পড়ে বন্দর নগরীর দলটি। তবে কার্টিস ক্যাম্ফারকে সঙ্গে নিয়ে চাপ সামাল দেন ওপেনার সৈকত আলি। ৫৮ রানের জুটি গড়েন এই দুই ব্যাটার। তবে দলীয় ১০৮ রানে ২১ বলে ২৪ রান করে আউট হন ক্যাম্ফার। তবে সাবলীল ব্যাটিংয়ে ফিফটি তুলে নেন সৈকত।

এরপর দ্রুতই আরও জোড়া উইকেট হারায় চট্টগ্রাম। সৈকত ৪৫ বলে ৬৩ ও শহিদুল ইসলাম ৪ বলে ১ রান করে সাজঘরে ফিরে যান। শেষ দিকে অধিনায়ক শুভাগত হোমের ১২ বলে ৩০ রানের ঝড়ো ইনিংস শুধু হারের ব্যবধান কমিয়েছে।

শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫৮ রান করে চট্টগ্রাম। তাতে ৫৩ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে রংপুর রাইডার্স। বল হাতে সর্বোচ্চ দুইটি করে উইকেট নেন সাকিব ও নিশাম। আর এই জয়ে ৮ ম্যাচে ৬ জয়ে ১২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে থাকলো রংপুর। অন্যদিকে ৮ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে তিনে চট্টগ্রাম।   

প্রিন্ট

আরও সংবাদ