খুলনা | রবিবার | ১৪ এপ্রিল ২০২৪ | ৩০ চৈত্র ১৪৩০

ইতিহাসে বঙ্গবন্ধুর অবদান ছোট করা একটি শ্রেণির মজ্জাগত অভ্যাস : প্রধানমন্ত্রী

খবর প্রতিবেদন |
০৪:৫৮ পি.এম | ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪


ভাষা আন্দোলনে বঙ্গবন্ধুর অবদানকে মুছে ফেলতে একটা শ্রেণি চেষ্টা করেছিল মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ইতিহাসে বঙ্গবন্ধুর অবদান ছোট করা একশ্রেণির মজ্জাগত অভ্যাস। তারাই দেশের ক্ষতি করছে।

মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় এমন মন্তব্য করেন তিনি।

বাঙালির সব অর্জন আওয়ামী লীগের হাত ধরে এসেছে মন্তব্য করে শেখ হাসিনা বলেন, বিশ্বের বুকে আমরা যে পরিচয়টা পেয়েছি, সেটা দিয়ে গেছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। আমরা যে মাতৃভাষায় কথা বলতে পারছি, আমরা যে স্বাধীন জাতি হিসেবে মর্যাদা পেয়েছি সেটা তার হাত ধরেই এসেছে।

তিনি বলেন, ‘একটি বিজাতীয় ভাষা আমাদের ওপর চাপিয়ে দেওয়ার যে প্রচেষ্টা তার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু। মুজিব একটি জাতির রুপকার, এই সিনেমা দেখলেও কিন্তু ইতিহাসের অনেক কিছু জানার সুযোগ রয়েছে। ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস থেকে বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে ফেলা হয়েছে। অনেক জ্ঞানীগুণী বুদ্ধিজীবীর বক্তব্য ছিল তিনি (বঙ্গবন্ধু) আবার ভাষা আন্দোলেন কী ভূমিকা রেখেছিলেন। দেশের মানুষের কথা বলতে গিয়ে তিনি বারবার জেলে গেছেন।’

সরকারপ্রধান বলেন, জাতির পিতার অবদানকে খাটো করার চেষ্টা হলেও কোনো লাভ হয়নি। ইতিহাস বিকৃত করা এক শ্রেণির মানুষের মজ্জাগত সমস্যা। তাদের কিছুই ভালো লাগে না, কোনো ভালো কাজই তাদের পছন্দ হয় না।

সরকারপ্রধান বলেন, অনেক আত্মত্যাগের মধ্য দিয়ে গণতান্ত্রিক অধিকারসহ আমাদের সবকিছু অর্জন করতে হয়েছে। ৪৭ সালে করাচিতে একটা শিক্ষা সম্মেলন হয়, সেখানে বলা হয় রাষ্ট্রভাষা হবে উর্দু। সেদিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্ররা এই প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে গিয়ে প্রতিবাদ জানায়।

আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন- আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, ড. আব্দুর রাজ্জাক, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য আতাউর রহমান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফী, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান প্রমুখ।

প্রিন্ট

আরও সংবাদ