খুলনা | সোমবার | ২০ মে ২০২৪ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

দেশের ছয় জেলাতে হিটস্ট্রোকে ঝরে গেল ছয়জনের প্রাণ

খবর ডেস্ক |
০১:৫৩ এ.এম | ২৫ এপ্রিল ২০২৪


তীব্র তাপপ্রবাহে দেশের মানুষের নাজেহাল অবস্থা। তীব্র গরমে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন অনেকে। অনেকে গরম সহ্য করতে না পেরে হিটস্ট্রোকে মৃত্যুবরণও করছেন। বুধবার দেশের ছয় জেলাতে হিটস্ট্রোকে ছয়জন মৃত্যুবরণ করেছেন। এর মধ্যে মেহেরপুরের গাংনীতে বৃদ্ধ আব্দুল বারী, রাজধানীতে নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ইশতিয়াক ওয়ারেছ তূর্য, বরগুনায় শ্রমিক মোঃ নয়া মিয়া ফকির (৫৫), ভোলার চরফ্যাশনে মোটরবাইক চালক মিরাজ, কুড়িগ্রামের চিলমারীতে বৃদ্ধ নজির হোসেন এবং রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে নুরুল ইসলাম এক অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষকের মৃত্যু হয়েছে।  
এর আগে গত চারদিনে ২১ জন মারা গেছেন। এর মধ্যে মঙ্গলবার দুই কৃষকসহ ৪ জন সোমবার দুই নারীসহ ৪ জন, রোববার নারীসহ ৮ জন ও শুক্রবার ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।
মেহেরপুর: জেলার গাংনী উপজেলার গাঁড়াডোব গ্রামে হিট স্ট্রোকে হাজী আব্দুল বারী (৭০) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। বুধবার দুপুরে প্রচণ্ড গরমের কারণে অসুস্থ হয়ে পড়লে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার সময় পথেই মারা যান তিনি।
আব্দুল বারীকের জামাতা আব্দুর রাজ্জাক বলেন, দুপুরে তিনি বাড়ির বাইরে একটু হাঁটাহাঁটি করছিলেন। এসময় শরীর খারাপ লাগলে বাড়িতে চলে আসেন। এরপরেই অসুস্থ হয়ে পড়েন। দ্রুত তাকে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার সময় পথেই মারা যান।  
রাজধানী : মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) রাত ৯টার দিকে নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ইশতিয়াক ওয়ারেছ তূর্য মারা যান। তীব্র তাপপ্রবাহে হিটস্ট্রোকে তার মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করছেন তার স্বজনরা। নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক ও জনসংযোগ দপ্তরের উপ-পরিচালক আসিফ বিন আলী গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে তূর্য অসুস্থ হয়ে পড়লে হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। হিটস্ট্রোকে মারা গেছেন বলে তার পরিবার ও স্বজনরা ধারণা করছেন। আমরা তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করছি। ইশতিয়াক ওয়ারেছ তূর্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগের ২০২তম ব্যাচের শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন বলেও জানান তিনি।
বরগুনা : জেলার তালতলীতে পুকুর খননের সময় তীব্র দাবদাহে হিটস্ট্রোক করে মোঃ নয়া মিয়া ফকির (৫৫) নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের খোট্টার চর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শ্রমিক মোঃ নয়া মিয়া ফকির খোট্টার চর এলাকার আমির আলী ফকিরের ছেলে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের খোট্টার চর গ্রামের মোঃ হাসান মিয়ার বাড়িতে পুকুর খননের কাজ করতে যান মোঃ নয়া মিয়া ফকির। পুকুর খননের সময় হিটস্ট্রোক করেন তিনি। এ সময় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন।
এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ সুমন কুমার পোদ্দার বলেন, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, অতিরিক্ত গরমে হিটস্ট্রোকে তার মৃত্যু হয়েছে।
রাজবাড়ী : জেলার গোয়ালন্দে হিটস্ট্রোকে নুরুল ইসলাম (৭৫) নামে এক অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষকের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (২৪ এপ্রিল) বেলা ১১টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তার বাড়ি গোয়ালন্দ উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামে।
স্থানীয়রা জানান, বুধবার সকাল ১০টার দিকে নুরুল ইসলাম তীব্র রোদ ও গরম উপেক্ষা করে বাড়ির দৈনন্দিন কাজ করছিলেন। এ সময় তিনি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।
গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ফারসিম তারান্নুম হক বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ওই ব্যক্তি ডায়াবেটিকস ও অন্যান্য রোগে আক্রান্ত ছিলেন। এ অবস্থার মধ্যে তিনি রোদে দীর্ঘক্ষণ থাকায় পানিশূন্যতার সৃষ্টি হয়ে স্ট্রোক করে। তাকে হাসপাতালে আনার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।
কুড়িগ্রাম : জেলার চিলমারী উপজেলায় প্রচন্ড গরমে অসুস্থ হয়ে ৭০ বছর বয়সি নজির হোসেন নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার সকাল সাড়ে ৭টায় উপজেলার রমনা ইউনিয়নের রমনা ব্যাপারীপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে বলে ওই ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য রোকোনুজ্জামান সরকার জানান।
রোকোনুজ্জামান বলেন, নজির হোসেনের বসতভিটা চিলমারী নৌ-বন্দর স¤প্রসারণ কাজে কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসন থেকে অধিগ্রহণ করা হবে। এ নিয়ে তিনি চিন্তিত ছিলেন।
তিনি বলেন, এছাড়া বুধবার সকাল থেকে প্রচন্ড দাবদাহের কারণে তিনি বারবার পানি খাচ্ছিলেন। এ সময় হঠাৎ তিনি অচেতন হয়ে পরে যান। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই তিনি মারা যান। হিটস্ট্রোকের কারণে তার মৃত্যু হতে পারে বলে ধারণা এই ইউপি সদস্যের।
ভোলা : জেলার চরফ্যাশনে হিটস্ট্রোকে মোটর বাইক চালক মিরাজের  মৃত্যু হয়েছে। বুধবার বেলা ১২টার দিকে উপজেলার আবু বক্করপুর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের মতলব মিয়ার বাজার সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 
নিহতের বাবা রফিকুল ইসলাম জানান, তার ছেলে মিরাজ সকালে ভাড়ায় চালিত মোটর বাইক নিয়ে বাড়ি থেকে বের হন। দুপুর ১২টার দিকে আবু বক্করপুর ইউনিয়নের মতলব মিয়ার বাজার সংলগ্ন এলাকায় তীব্র গরমে হঠাৎ মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে আশপাশের লোকজন তাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে চরফ্যাশন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
চরফ্যাশন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ মাহাবুব কবির বলেন, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসার আগেই মিরাজের মৃত্যু হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, অতিরিক্ত গরমে হিটস্ট্রোকে তার মৃত্যু হয়েছে।
চরফ্যাশন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ শাখাওয়াত হোসেন বলেন, তাপমাত্রা সইতে না পেরে হিটস্ট্রোকে মিরাজ মারা গেছেন। ঘটনাটি দুঃখজনক। পারিবারিক ভাবে তাকে দাফন করা হবে।
 

প্রিন্ট

আরও সংবাদ