খুলনা | সোমবার | ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১১ আশ্বিন ১৪২৮

ইভ্যালির কাছে মার্চেন্টদের পাওনা ২০৬ কোটি টাকা

খবর প্রতিবেদন |
০৮:১৯ এ.এম | ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

ইভ্যালির কাছে তার মার্চেন্টরা (ব্যবসায়ী) ২০৫ কোটি ৮৬ লাখ টাকা পাবেন। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কারণ দর্শানো নোটিশের জবাবে গত বৃহস্পতিবার কোম্পানিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ রাসেল এই তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানিয়েছেন, মার্চেন্টদের সঙ্গে ইভ্যালি চুক্তিভিত্তিক পদ্ধতিতে ব্যবসা করছে। ইভ্যালিতে বিক্রি হওয়া পণ্যের বিপরীতে মার্চেন্টরা ১৫-২০ শতাংশ মুনাফা করে থাকেন। ইভ্যালির বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন গত মাসে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে জমা দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। প্রতিবেদনে ইভ্যালির মোট দায় ৪০৭ কোটি ১৮ লাখ টাকা উল্লেখ করা হয়। গ্রাহকদের কাছ থেকে অগ্রিম ২১৩ কোটি ৯৪ লাখ টাকা ও মার্চেন্টদের কাছ থেকে ১৮৯ কোটি ৮৫ লাখ টাকা নেয়ার পর ইভ্যালির চলতি সম্পদের পরিমাণ ৪০৩ কোটি ৮০ লাখ টাকা হওয়ার কথা থাকলেও প্রতিষ্ঠানটির সম্পদ রয়েছে মাত্র ৬৫ কোটি ১৭ লাখ টাকার।

বাণিজ্যসচিব তপন কান্তি ঘোষ বলেন, ‘ইভ্যালির পক্ষ থেকে জবাব পেয়েছি। বিষয়টি দেখার জন্য আমরা একটি কমিটি গঠন করেছি। কম্পানিটির দায় ও বিজনেস পলিসি বিশ্লেষণ করতে কমিটি অবিলম্বে বসবে এবং এ বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে।’

গত ১৫ জুলাই পর্যন্ত গ্রাহকদের কাছ থেকে নেওয়া অগ্রিম, সরবরাহকারীদের দেনা, ব্যাবসায়িক দেনাসহ ইভ্যালির মোট দায়ের পরিমাণ ৫৪৩ কোটি টাকা। এ ছাড়া বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে দেয়া বিবৃতিতে শেয়ারহোল্ডার ইক্যুইটি বাবদ আরো এক কোটি টাকা দায় হওয়ার কথা জানায় ইভ্যালি।

প্রতিষ্ঠানটি আরো জানায়, তাদের স্থায়ী ও অস্থায়ী সম্পদের পরিমাণ ১২১ কোটি টাকা। সব সম্পদ বিক্রি করলেও তারা গ্রাহক ও সরবরাহকারীদের মোট দেনার মাত্র ২২ শতাংশ পরিশোধ করতে পারবে।

প্রিন্ট

আরও সংবাদ