খুলনা | মঙ্গলবার | ২৩ জুলাই ২০২৪ | ৭ শ্রাবণ ১৪৩১

বেনজীরের রিসোর্ট থেকে এবার কম্পিউটার চুরি, ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা

খবর প্রতিবেদন |
০১:৪৭ এ.এম | ১৪ জুন ২০২৪


পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদের পরিবারের সদস্যদের নামে থাকা গোপালগঞ্জের সাভানা ইকো রিসোর্ট এ্যান্ড ন্যাচারাল পার্কের প্রশাসনিক ভবন থেকে কম্পিউটার চুরির ঘটনা ঘটেছে। বুধবার রাতে এই ঘটনা ঘটে। চুরির ঘটনায় গোপালগঞ্জ সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। সাভানা রিসোর্টের বর্তমান দায়িত্বপ্রাপ্ত ম্যানেজার মোহাম্মদ সারোয়ার হোসেন বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেছেন।
সাভানা পার্কের কম্পিউটার চুরির বিষয়ে গোপালগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আনিছুর রহমান বলেন, পুলিশের সাবেক আইজিপি বেনজীর আহমেদের সভানা পার্কের এইচ আরের কর্মকর্তা সারোয়ার হোসেন বাদী হয়ে মামলা করেছেন। তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ করেছি, আশা করছি দ্রুততম সময়ের মধ্যে চুরি হওয়া কম্পিউটার উদ্ধার করতে সক্ষম হব।
মামলার এজাহারে সারোয়ার হোসেন বলেন, আদালতের আদেশে জব্দ হওয়ার পর রিসোর্টের ম্যানেজারের দায়িত্ব পাই আমি। প্রতিদিনের মতো রাতের খাবার শেষে আমি ঘুমাতে যাই। এর মধ্যেই বুধবার রাত সাড়ে দশটার পর যেকোনো সময় রিসোর্ট এর অফিস পক্ষ থেকে তিনটি কম্পিউটার ও একটি মনিটর চুরি হয়ে যায়। যার বাজার মূল্য দুই লাখ টাকার মত।
এজাহারে আরো বলা হয়, ঘটনার পর দুদক ও কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তরে কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে আসেন। এ সময় সিসি টিভি’র ফুটেজ পর্যালোচনা করে দেখা যায় বাইরে থেকে কয়েকজন সুকৌশলে এসে কম্পিউটার ও মনিটর চুরি করে নিয়ে যায়।
মামলার আসামিরা হলেন, বৈরাগী তলা এলাকার বাসিন্দা সুব্রত রায়, অনিমেষ সেন, সজীব মজুমদার, সঞ্জয় বল ও বিপ্লব বল।
মামলার সূত্র ধরে দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রধান কার্যালয় থেকে গোপালগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মশিউর রহমানকে সদস্য সচিব করে একটি তদারকি কমিটি গঠন করা হয়। রিসোর্টের মালামাল রক্ষণাবেক্ষণ ও নিরাপত্তা জোরদারের লক্ষ্যে এই তদারকি কমিটি গঠন করা হয় বলে জানা গেছে।
এর আগে গত সপ্তাহে বেনজীর আহমেদ ও তার পরিবারের সদস্যদের মালিকানাধীন সাভানা ইকো রিসোর্ট এর আওতাধীন গরুর খামার থেকে অন্তত ২০টি গরু এক রাতেই উধাও হয়ে যায়। খবর নিয়ে জানা যায় খামারের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মী বারেক মিয়া ঘূর্ণিঝড় রেমালের রাতে গরুগুলো নিয়ে চলে যান।

প্রিন্ট

আরও সংবাদ