খুলনা | সোমবার | ২২ জুলাই ২০২৪ | ৭ শ্রাবণ ১৪৩১

পবিত্র হজ আজ : আনুষ্ঠানিকতা শুরু

খবর প্রতিবেদন |
১২:২৭ এ.এম | ১৫ জুন ২০২৪


আজ ৯ জিলহজ (সৌদি আরবে) শনিবার ১৫ জুন পবিত্র হজ। লাব্বাইক আল­াহুম্মা লাব্বাইক, লাব্বাইক লা শারিকা লাকা লাব্বাইক, ইন্নাল হামদা ওয়ান্ নি’মাতা লাকা ওয়াল মুলক, লা শারিকা লাক’ ধ্বনিতে মুখরিত হবে আরাফার প্রান্তর। সারা বিশ্ব থেকে এরই মধ্যে ১৫ লক্ষাধিক হাজি মক্কা নগরীতে সমবেত হয়েছেন। ১৬ জুন ১০ জিলহজ সৌদি আরবে ঈদুল আযহা পালিত হবে। পাঁচ দিনব্যাপী পবিত্র হজের মূল কার্যক্রম গত বৃহস্পতিবার শুরু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার মিনায় হাজিরা নিজ নিজ তাঁবুতে ফজর থেকে শুরু করে এশা অর্থাৎ পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করেন। তবে খায়েফ ও কুয়েতি মসজিদের কাছাকাছি যাদের তাঁবু তারা মসজিদে গিয়েও নামাজ আদায় করতে পারবেন। শনিবার ভোর পর্যন্ত মিনায় অবস্থান করে মহান আল­াহর নৈকট্য লাভের আশায় জিকির ও ইবাদত-বন্দেগির মধ্য দিয়ে সময় কাটাচ্ছেন তারা।
আজ শনিবার ভোরে মিনা থেকে রওনা হয়ে আরাফাতের ময়দানে সমবেত হবেন হাজি সাহেবানরা। এখানে হজের খুতবা শুনবেন। এখানে একসঙ্গে জোহর ও আসরের নামাজ আদায় করবেন। আরাফাতের ময়দানে সন্ধ্যা পর্যন্ত অবস্থানের পর হাজিরা সেখান থেকে সরাসরি মুজদালিফায় যাবেন। সেখানে একসঙ্গে মাগরিব ও এশার নামাজ আদায় করবেন। সেখানে খোলা আকাশের নিচে রাতযাপন করবেন। এ সময় শয়তানের উদ্দেশ্যে পাথর মারার জন্য ছোট ছোট পাথর সংগ্রহ করবেন।
এরপর হাজিদের পর্যায়ক্রমে চারটি কাজ সম্পন্ন করতে হয়। শয়তানকে প্রতীকী পাথর নিক্ষেপ, আল­াহর উদ্দেশ্যে পশু কোরবানি, মাথা মুন্ডন করা এবং তাওয়াফে জিয়ারত। ১২ জিলহজ (সৌদি আরবে), ১৮ জুন মঙ্গলবার শয়তানকে শেষবার পাথর নিক্ষেপের মধ্য দিয়ে শেষ হবে পাঁচ দিনের হজের কার্যক্রম।
ইসলামের পঞ্চম স্তম্ভ হজ পালনের জন্য ইতোমধ্যে বাংলাদেশসহ বিশ্বের নানা প্রান্তের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা আল­াহর ডাকে সাড়া দিয়ে তীব্র গরম উপেক্ষা হাজির হয়েছেন পবিত্র মক্কা নগরীতে। বাংলাদেশ থেকে এবার পবিত্র হজ পালন করতে সৌদি আরব পৌঁছেছেন ৮৫ হাজার ১২৯ জন। শুক্রবার পবিত্র মক্কা নগরীতে ৪৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার মধ্যে হজ পালন ইচ্ছুকরা অবস্থান করেন।
জানা গেছে, এ বছর বিশ্বের ২০ লাখেরও বেশি মুসলমান হজ পালন করছেন। বাংলাদেশ থেকে হজে গেছেন ৮২ হাজার ৭৭২ জন। হজযাত্রীদের স্বাগত জানাতে এবার ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। তুর্কি সংবাদমাধ্যম আনাদোলু এই খবর জানিয়েছে।
গ্র্যান্ড মসজিদ থেকে ৭ কিলোমিটার (৪.৩৫ মাইল) উত্তর-পূর্বে অবস্থিত মিনা। মক্কা ও মুজদালিফার মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান এটি। এই উপত্যকাটি উত্তর ও দক্ষিণে পাহাড় দিয়ে ঘেরা এবং মসজিদুল হারামের সীমানার মধ্যে অবস্থিত। শুধু হজের সময়েই সেখানে মানুষের ভিড় জমে।
আরবি বর্ষপঞ্জিকার শেষ মাস জিলহজের ৮ তারিখ থেকে শুরু হয় হজ। এরপর ৯ জিলহজ আরাফাতের দিন শেষে ১০ জিলহজ পশু কোরবানি করেন হাজিরা। সৌদি আরবের আজ হিজরি সন ১৪৪৫ সালের জিলহজ মাসের ৮ তারিখ।
হজের আনুষ্ঠানিকতার প্রাথমিক পর্যায়ে হাজিদের স্বাগত জানাতে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। ৩০ হাজার হজযাত্রীর থাকার জন্য মিনায় বহুতল আবাসিক টাওয়ার তৈরি করা হয়েছে।
এদিকে, সৌদিতে শুক্রবার গড় তাপমাত্রা ৪৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সৌদি বার্তা সংস্থা এসপিএ জানিয়েছিল, তাপজনিত সম্ভাব্য অসুস্থতা ও হিটস্ট্রোক মোকাবিলায় চারটি হাসপাতাল প্রস্তুত রেখেছে কর্তৃপক্ষ। ইসলামের পঞ্চম স্তম্ভ হজ। আর্থিকভাবে সক্ষম মুসলমানদের জন্য জীবনে অন্তত একবার পালন করা ফরজ। 

প্রিন্ট

আরও সংবাদ