খুলনা | মঙ্গলবার | ২৩ জুলাই ২০২৪ | ৮ শ্রাবণ ১৪৩১

হজযাত্রীদের সেবা দেওয়ার সময় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন সৌদির স্বাস্থ্য কর্মকর্তা

খবর প্রতিবেদন |
০১:৩৪ এ.এম | ১৬ জুন ২০২৪


সৌদি আরবের পবিত্র নগরী মক্কায় হজযাত্রীদের চিকিৎসাসেবা দেওয়ার সময় দেশটির একজন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছেন। ওই কর্মকর্তা মারা যাওয়ায় অনেক হজযাত্রীর মাঝে ব্যাপক শোক নেমে এসেছে।
শুক্রবার থেকে শুরু হওয়া হজের আনুষ্ঠানিকতা পালনের একটি পবিত্র স্থানে সৌদি ওই স্বাস্থ্য কর্মকর্তার মৃত্যু হেেয়ছে। মৃত ওই কর্মকর্তার নাম আবদুল­াহ আল হারথি। তিনি মক্কা হেলথ ক্লাস্টারের কর্মকর্তা ও স্বাস্থ্য কেন্দ্রের তত্ত¡াবধায়ক হিসেবে দায়িত্বরত ছিলেন। হজযাত্রীদের সেবা দেওয়ার সময় মারা গেছেন তিনি।
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্সে দেওয়া এক পোস্টে আল হারথির প্রাণহানির ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন সৌদির স্বাস্থ্যমন্ত্রী ফাহাদ আল জালাজেল। এক্সে তিনি লিখেছেন, পবিত্র স্থানে মহান আল­াহর অতিথিদের সেবা করার সময় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন প্রিয় এক সহকর্মী। তিনি অতিথিদের সেবা দেওয়ার দীর্ঘযাত্রার অংশ হিসাবে দায়িত্ব পালনে আন্তরিক ছিলেন এবং অনেকের জীবনে দুর্দান্ত প্রভাব ফেলেছিলেন।
চলতি বছরের হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরুর একদিন আগে গত বৃহস্পতিবার মারা গেছেন আল হারথি। তিনি মক্কার কাছে মিনা উপত্যকায় একটি বহুতল কাঠামোতে শয়তানকে লক্ষ্য করে হজযাত্রীদের প্রতীকী পাথর নিক্ষেপ শুরু করার স্থান জাম্মারাতের স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মারা গেছেন।
তবে সৌদির এই স্বাস্থ্য কর্মকর্তার মৃত্যুর কারণ প্রকাশ করা হয়নি। হজ মৌসুমে সৌদি আরবজুড়ে বর্তমানে গ্রীষ্মের তীব্র তাপদাহ চলছে। যে কারণে দেশটিতে বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে যাওয়া লাখ লাখ হজযাত্রীর জন্য স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা ব্যাপক জোরদার করা হয়েছে।
সৌদি কর্তৃপক্ষ হজযাত্রীদের ব্যবহৃত বিভিন্ন স্থাপনা ও পথে হাজার হাজার চিকিৎসাকর্মী মোতায়েন করেছে। হজযাত্রীদের জন্য বিভিন্ন ধরনের চিকিৎসা সেবা দেওয়ার লক্ষ্যে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় পবিত্র মক্কা ও মদিনার পাশাপাশি অন্যান্য পবিত্র স্থানে ভ্রাম্যমাণ ক্লিনিকের পাশাপাশি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ৩২ হাজারেরও বেশি চিকিৎসা ও প্রশাসনিক কর্মী মোতয়েন করেছে।
এছাড়া দেশটিতে হজযাত্রীদের দ্রুত উন্নত চিকিৎসা নিশ্চিত করার জন্য এয়ার অ্যাম্বুলেন্স সেবা চালু করা হয়েছে। ভ্রাম্যমাণ স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রগুলোতে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ) ব্যবস্থাও রয়েছে।
এসব কেন্দ্রে হিটস্ট্রোকের রোগীদের জন্যও সর্বাধুনিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। দেশটির আবহাওয়া সংস্থা হজের সময় মক্কা ও মদিনায় তাপমাত্রা ৪৫ থেকে ৪৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছাতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে।
 

প্রিন্ট

আরও সংবাদ