খুলনা | মঙ্গলবার | ২৩ জুলাই ২০২৪ | ৮ শ্রাবণ ১৪৩১

বাগেরহাটে লাইসেন্স দেখার সময় রিকশা চালককে চড়থাপ্পড় মারলেন পৌর কর্মচারী

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাগেরহাট |
১২:৪১ এ.এম | ২১ জুন ২০২৪


বাগেরহাটে ব্যাটারিচালিত এক রিকশা চালককে চড়থাপ্পড় মারার অভিযোগ উঠেছে পৌরসভার প্রধান সহকারী রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার সকালে বাগেরহাট পৌরসভার প্রধান ফটকে সামনে রিকশা লাইসেন্স (নিবন্ধন) পরীক্ষার জন্য রাস্তায় দাঁড়িয়ে ওই ঘটনা ঘটান রফিকুলসহ পৌরসভার কর্মীরা। পৌরসভার লাইসেন্স আছে কি না তা যাচাইয়ের সময় এ দিন আরও কয়েক জন রিকশা ও ইজিবাইক চালকের গায়ে হাত তোলা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে অভিযুক্ত প্রধান সহকারী রফিকুল ইসলামের ভাষ্য, ‘চড়-থাপ্পড় দেইনি, আনন্দ করছি আরকি’।
সকাল ১০টা ২৮ মিনিটে পৌরসভার প্রধান ফটকে একটি রিকশা আটকে তাঁর চালককে ধামকি ও চড়থাপ্পড় দেওয়া একটি ভিডিও ফুটেজ পাওয়া গেছে। ওই ভিডিওতে দেখা যায় পৌরসভার সামনের রাস্তায় দাঁড়িয়ে পৌরকর্মীদের একটি দল রিকশা, ভ্যান ও ইজিবাইক আটকাচ্ছে। বাগেরহাট পৌরসভার নিবন্ধন না থাকা যানগুলোকে যাত্রীসহ পৌরসভার ভেতরে ঢুকিয়ে দিচ্ছেন তারা। কোন রিকশা দাঁড়াতে না চাইলে তাকে ধরে নিয়ে আসা হচ্ছে, আবার কোনটির চাবি ছিনিয়ে নিচ্ছেন ৭-৮ জনের ওই দলটি। এরই মাঝে সেখানে না দাঁড়ানো একটি রিকশাকে ধরে নিয়ে আসেন পৌরসভার এক কর্মী। তখন সেখানে থাকা বাগেরহাট পৌরসভার প্রধান সহকারী রফিকুল ইসলাম মিঠু বা’হাত দিয়ে দুটি ধাপ্পড় দেন রিকশা চালক যুবককে। তখন ওই রিকশা চালককে ধমকাতেও দেখা যায়। এর আগেও নানা সময় ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে বিভিন্ন জনের গায়ে হাত তোলাসহ সহর্মীদের সাথে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ রয়েছে। ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়লেও, ওই যুবককে পাওয়া যায়নি। তার নাম পরিচয়ও শনাক্ত করা যায়নি।
জানা গেছে, বাগেরহাট শহরে চলাচলকারী ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইকে পৌরসভা থেকে নিবন্ধন (লাইসেন্স) নিতে বলা হয়েছে। গেল অর্থ বছরে এমন ২৫৩টি ব্যাটারিচালিত যানকে নিবন্ধনও দেয় বাগেরহাট পৌরসভা। তবে স্থানীয় সংসদ সদস্যের সুপারিশে এরপর থেকে এই নিবন্ধন বন্ধ ছিল। চলতি জুন ২০২৪ মাস থেকে তা আবারও কার্যকর শুরু করেছে বাগেরহাট পৌরসভা। 
বাগেরহাট পৌরসভার লাইসেন্স শাখা ইন্সপেক্টর খান দেলোয়ার হোসেন বলেন, পৌরসভার মাঝে চলাচলকারী ব্যাটারিচালিত যানবহনকে পৌরসভা থেকে নিবন্ধন নিতে হয়। প্রতিটি যানবাহনের জন্য বছরে নিবন্ধন ফি ১ হাজার ৫০০ টাকা। গতবছর নিবন্ধন শুরু পর মাঝে প্রায় ৬-৭ মাস বন্ধ ছিল। চলতি মাসে আবারও নিবন্ধন শুরুর পর এখন পর্যন্ত ৭৩টি ইজিবাইককে নিবন্ধন দেওয়া হয়েছে। 
বাগেরহাট পৌরসভার প্রধান সহকারী রফিকুল ইসলাম মিঠু বলেন, আমরা ওদেরকে বলে দিচ্ছি যদি আপনারা বাগেরহাট পৌর এলাকায় গাড়ি চালান সেক্ষেত্রে পৌরসভা থেকে লাইসেন্স নিতে হবে। মারধরের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমি একটা ছেলেকে চড় দিছি সে আমার পরিচিত। সে তো নালিশ করতে পারবে না। তার সঙ্গে আমি এক সঙ্গে চা খাই, এক সাথে বসি। একটা ছেলে মাত্র, চড় না এটা। সেই ছেলের সাথে আমার খুব ভালো সম্পর্ক। তাকে চড়থাপ্পড় দেইনি, আনন্দ করছি আরকি।’ বাগেরহাট পৌরসভার প্রধান নির্বাহী ও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোঃ রাশেদুজ্জামানের মুঠোফোনে বলেন, কোনভাবেই একজনকে তিনি গায়ে হাত তুলতে পারবেন না।
 

প্রিন্ট

আরও সংবাদ