খুলনা | মঙ্গলবার | ২৩ জুলাই ২০২৪ | ৭ শ্রাবণ ১৪৩১

কক্সবাজারে ভারী বৃষ্টিতে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, পাহাড়ধসে নিহত ২

খবর প্রতিবেদন |
০১:২০ পি.এম | ১১ জুলাই ২০২৪


ভারী বৃষ্টিতে কক্সবাজারের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। ২৪ ঘণ্টায় কক্সবাজারে ৯৪ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।বৃষ্টিতে পাহাড় ধসে এক শিশুসহ দুইজন নিহত হয়েছেন।

বুধবার দিবাগত মধ্যরাত থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টি বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত অব্যাহত ছিল। বৃষ্টিতে জেলার ৯ উপজেলায় বেশিরভাগ এলাকার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল আটটার দিকে বৃষ্টি কিছুটা কমলেও ১১টার দিকে আবারও ঝুম বৃষ্টি শুরু হয়। এতে তলিয়ে যায় কক্সবাজার শহরের রাস্তাঘাট ও উপজেলার বিভিন্ন নিম্নাঞ্চল। বৃষ্টির পানিতে জনদুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে। বিপাকে পড়েছেন এইচএসসি পরীক্ষার্থীরা।

পৌরসভার বাসিন্দা ফাহিম ইস্তেহাদ জানান, কক্সবাজার পৌর এলাকায় অনুন্নত ড্রেনেজ ব্যবস্থার কারণে পানি সরাসরি নামতে না পেরে সড়কে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। ভারী বৃষ্টিতে শহরের বেশিরভাগ বসতবাড়িতে পানি প্রবেশ করেছে। এতে পৌরসভার বাসিন্দাদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

রাত থেকে শুরু হওয়া ভারী বৃষ্টিতে এইচএসসি পরীক্ষার্থীরা কেন্দ্রে যেতে বিড়ম্বনার শিকার হয়েছেন। কক্সবাজার পৌর এলাকা ছাড়াও জেলার রামু উপজেলা, ঈদগাও, চকরিয়া, পেকুয়া উখিয়া এবং টেকনাফের বেশ কিছু গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মাহবুবুর রহমান চৌধুরী জানান, পাহাড় কাটার কারণে নালা ভরাট এবং কিছু অসাধু ব্যক্তি নালা দখল করে স্থাপনা নির্মাণ করায় বৃষ্টির পানির স্বাভাবিক গতি বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। এসব বিষয়ে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।

কক্সবাজার আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়াবিদ আব্দুল হান্নান জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে ৯টা পর্যন্ত কক্সবাজারে ৯৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

অতিবৃষ্টির কারণে পাহাড় ধসের আশঙ্কা থাকায় ঝুঁকিপূর্ণভাবে পাহাড়ের চূড়া এবং পাহাড়ের পাদদেশে বসবাসকারীদের নিরাপদে আশ্রয়ে চলে যাওয়ার অনুরোধ করেছেন জেলা প্রশাসক মুহম্মদ শাহীন ইমরান। কেউ আদেশ অমান্য করলে তাদের বিরুদ্ধে  ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

এদিকে ভারী বৃষ্টিতে পাহাড় ধসে এক নারী ও এক শিশুর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার ভোররাতে শহরের সিকদারপাড়া ও পূর্ব পল্যান কাটা এলাকায় পাহাড় ধসে তাদের মৃত্যু হয়। নিহতরা হলেন- কক্সবাজার শহরের সিকদারপাড়া এলাকার সাইফুলের ছেলে মো. হাসান (১০) এবং পূর্ব পল্যান কাটা এলাকার মোহাম্মদ করিমের স্ত্রী জমিলা বেগম (৩০)।

প্রিন্ট

আরও সংবাদ