খুলনা | শুক্রবার | ০১ জুলাই ২০২২ | ১৭ আষাঢ় ১৪২৯

‘রায়ের পরই নিহত রাজিনের মাকে হুমকি’

খুলনার আদালত প্রাঙ্গণেই কিশোর গ্যাংয়ের তান্ডব!

নিজস্ব প্রতিবেদক |
০১:১৮ এ.এম | ২৪ মে ২০২২


সন্তানের হত্যাকান্ডের রায় শুনতে আদালতে উপস্থিত ছিলেন খুলনা পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের ৭ম শ্রেণির ছাত্র নিহত ফাহমিদ তানভীর রাজিন (১৩)’ মা রেহানা খাতুন। গতকাল সোমবার দুপুর দেড়টার দিকে খুলনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক আঃ ছালাম খান রায় ঘোষণা করেন। আলোচিত এ হত্যা মামলার রায় ঘোষণার পরপরই আদালতের ভেতরেই রেহানা খাতুনকে দেখে নেয়ার হুমকি দেয় দণ্ডপ্রাপ্ত কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা। তিনি আদালত থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের এসব অভিযোগ করেন।   
এরপর আসামিদের নিয়ে পুলিশ যখন প্রিজন ভ্যানের দিকে রওয়ানা হয়, ঠিক তখনই দণ্ডপ্রাপ্ত এ কিশোর গ্যাংয়ের আচরন সকলের সামনে আসে। তারা হ্যান্ডকাপ পরিহিত অবস্থায় পুলিশী নিরাপত্তা মধ্যে সাংবাদিকদের উপরে চড়াও হয়। অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে। একপর্যায়ে ইটপাটকেল তুলে সাংবাদিকদের লক্ষ করে ছুড়তে দেখা গেছে। পুলিশ অনেক চেষ্টার পর তাদেরকে প্রিজন ভ্যানে তুলে দ্রুত আদালত এলাকা ত্যাগ করেন। দণ্ডপ্রাপ্ত এসকল কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যদের মারমুখি আচরন দেখে সাধারণ মানুষ হতভম্ব হয়ে যায়। 
এ বিষয়ে ট্রাইব্যুনালের পিপি এড. ফরিদ আহমেদ বলেন, এতো অল্প বয়সে পরিকল্পিতভাবে একটি হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে এ কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা। তারা বয়রা এলাকায় টিপসি গ্যাংয়ের সদস্য বলে জানা গেছে। এ হত্যাকান্ডে সকলের সম্পৃক্ততা থাকায় আদালত ৩০২/৩৪ ধারায় ৭ বছর করে প্রত্যেককে বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন। তবে রায় ঘোষণার পর ভিকটিমের মা রেহানা খাতুনকে হুমকি ও আদালত প্রাঙ্গণে তাদের তান্ডবই বলে দেয় তারা কি? 
নিহত রাজিনের মা রেহানা খাতুন বলেন, আমি এখন খুবই নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। না জানি এ সকল অপরাধীরা উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে আরও কতো ক্ষতি করে। 

প্রিন্ট

আরও সংবাদ