খুলনা | রবিবার | ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ১৯ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

বৃষ্টি আর পাহাড়ি ঢলে তিস্তার পানি বৃদ্ধি

রংপুর প্রতিনিধি |
০৪:৫৫ পি.এম | ১৩ জুন ২০২২


কয়েক দিন ধরে টানা বৃষ্টিপাত আর উজানের পাহাড়ি ঢলে তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় রংপুরের বিভিন্ন এলাকায় নিন্ম অঞ্চল প্লাবিত হয়ে পড়েছে। যার ফলে বাদামসহ উঠতি ফসল পানিতে ডুবে ভেঙে গেছে  কৃষকের স্বপ্ন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, উজানের ঢলে আজ সোমবার (১৩ জুন) সকালে তিস্তায় পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। তিস্তা সেতু পয়েন্টে বিপদ সীমার ৪৭ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। তিস্তা ব্যারেজের ভাটিতে অবস্থিত কাউনিয়া উপজেলার বেশ কয়েকটি তিস্তার চর এলাকার নি¤œাঞ্চল পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে করে উঠতি ফসল, কাউন, মরিচ, বাদাম, পাট ও ভুট্টাসহ বিস্তীর্ণ চরের এক হাজার একর জমির ফসলের ক্ষেতে পানি প্রবেশ করেছে। ফলে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন চরাঞ্চলের কৃষকরা।

রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ ইলিয়াছ আহমেদ বলেন, কয়েক দিন ধরে টানা বৃষ্টি আর উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের কারণে তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। ভারী বৃষ্টি আর উজান  পাহাড়ি ঢলের পানি আসা অব্যাহত থাকলে তিস্তার ব্যাপক চরাঞ্চল প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

ডালিয়া পয়েন্ট পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, উজান থেকে পাহাড়ি ঢলের পানি আসায় ইতিমধ্যেই ডালিয়া ব্যারেজের ৪৪ টি জলকপাট খুলে দেয়া হয়েছে। এ কারণে ভাটিতে কাউনিয়ার চরাঞ্চলের বিভিন্ন ফসলের ক্ষেত  পানিতে ডুবে যাওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

কাউনিয়া উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের ঢুষমারার চর এলাকার চাষী নজরুল ইসলাম বলেন, কয়েক দিন ধরে টানা বৃষ্টি আর উজানের পাহাড়ি ঢলে তিস্তার পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। হঠাৎ পানি আসায় তাদের প্রায় ছয় একর আবাদি জমির দেরীতে রোপন করা বোরো ধান, পাট, কাউন ও বাদাম ক্ষেত পানিতে তলিয়ে গেছে। অনেক কৃষকের  উঠতি বাদাম ক্ষেত  পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় তাদের স্বপ্ন ধুলিসাৎ হয়ে পড়েছে।

কাউনিয়া উপজেলা কৃষি অফিসার  শাহানাজ পারভিন বলেন, তিস্তার  জেগে ওঠা চরাঞ্চলে হঠাৎ পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বিভিন্ন ফসলের ক্ষেত তলিয়ে গেছে। তবে দ্রুত পানি নেমে গেলে তেমন ক্ষতি হবে না।  

উপজেলায় এখনো ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরূপণ করা সম্ভব হয়নি। তিনি আরো জানান, ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের তালিকা তৈরি করে উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের নিকট দ্রুত প্রেরণ করা হবে। 

প্রিন্ট

আরও সংবাদ