খুলনা | শুক্রবার | ০১ জুলাই ২০২২ | ১৭ আষাঢ় ১৪২৯

রাষ্ট্রের অর্থনীতি প্রবৃদ্ধির গর্বিত অংশীদার

ফয়েজুল ইসলাম টিটো |
০২:১৪ এ.এম | ১৭ জুন ২০২২


বাংলাদেশ আমাদের মাতৃভূমি, আর এই মাতৃভূমির স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষা করার জন্য আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে পাকিস্তানের বিপক্ষে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে ৯ মাস যুদ্ধের পর এক সাগর রক্তের বিনিময়ে আমাদের পূর্ব পুরুষেরা আমাদের জন্য রেখে গেছেন স্বধীন এই ভূ-খন্ড। বর্তমানে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দায়িত্ব নিয়ে নিজ হাতে এই ভূ-খন্ড কে পৃথিবীর মানচিত্রে একটি শক্তিশালী স্বাধীন সার্বভৌমত্ব উন্নত রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করছেন বীর দর্পে।
আমাদের দক্ষিণ অঞ্চলের মানুষের যুগ-যুগান্তরের দুঃখ কষ্ট এবং এই অঞ্চলের মানুষদের মিলনস্থল হাজারো আনন্দ, কষ্ট, ভোগান্তি, নির্ঘুম রাত ঘাটে এসে সরাসরি ফেরিতে উঠার আলাদা অনুভূতি, জ্যামে আটকে না পড়ার জন্য মনোবেদনা এক ফেরিতে নবজাতক, নববধূ, বয়স্ক মানুষ, শিশু, তরুণ-তরুণী, লাশবাহী এ্যাম্বুলেন্স, অসুস্থ মানুষের উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজধানীতে ছুটে যাওয়ার ব্যকুলতা, বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের এমন মিলনস্থল, যেখানে ভোগান্তির কোন শেষ ছিলো না। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা এটি উপলব্ধি করে সকল প্রকার দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্র উপেক্ষা করে একটি কঠিন চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে বিদেশি ঋণ ছাড়া নিজস্ব অর্থ দিয়ে পদ্মা সেতুর কাজ সমাপ্ত করেছেন। এই সবকিছুই অতীত হয়ে যাবে স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে।
সূচিত হবে নতুন ইতিহাস, আর সেই ইতিহাস দক্ষিণ অঞ্চলের মানুষের দুর্ভোগের দিন শেষ হয়ে রাষ্ট্রের জন্য আশীর্বাদ হয়ে আধুনিক বাংলাদেশ নির্মাণের জন্য রাষ্ট্রের অর্থনীতিতে রাখবে গুরুত্বপূর্ণ অবদান। আমরা দক্ষিণবঙ্গবাসী হবো তার গর্বিত অংশীদার।
এই সকল কিছুর জন্য আমরা কৃতজ্ঞ বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার প্রতি। রাতের পদ্মা সেতুর আলোকসজ্জা আর হাইওয়ে সড়কের আলো আর সিগনাল ব্যবস্থাপনা আর পদ্মার উপরের পুর্ণিমার আলো অন্যরকম এক অনুভূতি। বিশ্বের ঐতিহাসিক স্থাপনাগুলির সামনে গেলে যে রকম অনুভূতি হয় পদ্মা সেতু হৃদয়ে সেই অনুভূতি দেয়।
পদ্মা সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে উন্মোচিত হবে নতুন অর্থনৈতিক দ্বার। তৈরি হবে নতুন নতুন শিল্প কলকারখানা, হবে কর্মসংস্থান। ঘুচবে এই অঞ্চলের বেকারত্ব। কৃষি, মৎস্য পোল্ট্রি ব্যবসার নতুন দ্বারা উন্মোচন হবে।
(লেখক : সাধারণ সম্পাদক, ২৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ, খুলনা মহানগর শাখা ও সাবেক ভিপি, সরকারি মজিদ মেমোরিয়াল সিটি কলেজে, খুলনা।)

প্রিন্ট

আরও সংবাদ