খুলনা | শুক্রবার | ০১ জুলাই ২০২২ | ১৭ আষাঢ় ১৪২৯

বিচারের মুখোমুখি হবেন ম্যারাডোনার চিকিৎসায় জড়িত ৮ স্বাস্থকর্মী

ক্রীড়া প্রতিবেদক |
০২:৪৮ পি.এম | ২৩ জুন ২০২২


দিয়েগো ম্যারাডনা এখন শুধুই অতীত। কিন্তু অতীত হলে কী হবে, ম্যারাডোনা এমন এক বর্ণময় চরিত্র, যিনি না থেকেও যেন আছেন! তাঁর মৃত্যুকে ঘিরে রহস্য দানা বেঁধেছিল। সেই রহস্যের জট এখনো পুরোপুরি খোলেনি। এই জট খুলতে এবার কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে কিংবদন্তির চিকিৎসায় জড়িত চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মীসহ আটজনকে।  

চিকিৎসক ও নার্সদের অবহেলাই ম্যারাডোনার মৃত্যুর কারণ কি না—এমন অভিযোগ উঠেছে। আর অভিযোগটি করেছে খোদ আর্জেন্টিনার পাবলিক প্রসিকিউটর। ম্যারাডোনার মৃত্যুর বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করতে যে মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছিল, তারাও দাবি করেছিল, ‘মারাডোনার মেডিকেল টিম যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়নি। তাঁর চিকিৎসাব্যবস্থায় ঘাটতি ছিল। আর ম্যারাডোনাকে ভাগ্যের ওপর ফেলে রাখা হয়েছিল।’

ম্যারাডোনার মৃত্যু নিয়ে হওয়া মামলায় অভিযুক্ত হয়েছেন স্নায়ু শল্যচিকিৎসক ও  লিয়োপল্ডো লুক, মনোরোগ বিশেষজ্ঞ অগাস্টিনো কোসাশভ, মনোবিজ্ঞানী কার্লোস ডিয়াজ, মেডিকেল কো-অর্ডিনেটর ন্যান্সি ফোরলিনি এবং দুই নার্সসহ চারজন। বিচারের মুখোমুখি হতে হবে এঁদের সবাইকে। বিচারে তাঁদের ৮ থেকে ২৫ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। যদিও এঁরা প্রত্যেকেই তাঁদের দায়িত্ব অস্বীকার করেছেন। ২০২৩ সালের শেষ থেকে ২০২৪ সালের শুরুর মধ্যে আদালতে উঠতে পারে বলে জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা অ্যাসোসিয়েট প্রেস।

২০২০ সালে ২৫ নভেম্বর মারা গিয়েছিলেন ম্যারাডোনা । জানা গিয়েছিল, ৬০ বছর বয়সী এই ফুটবল জাদুকর  হৃদ্রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। ম্যারাডোনার রহস্যজনক এই মৃত্যুকে স্বাভাবিকভাবে নিতে পারেননি অনেকেই।

প্রিন্ট

আরও সংবাদ