খুলনা | মঙ্গলবার | ০৪ অক্টোবর ২০২২ | ১৯ আশ্বিন ১৪২৯

অসদুপায় অবলম্বনের দায়ে ৫৮ পরীক্ষার্থী বহিস্কৃত

এসএসসি পরীক্ষা : চতুর্থ দিনে অনুপস্থিত ২৭ হাজারের বেশি

খবর প্রতিবেদন |
০১:২৫ এ.এম | ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২


এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার তৃতীয় দিনে সারা দেশে ২৭ হাজার ৪৯৬ জন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল। এর মধ্যে নয়টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডে ১৬ হাজার ৩৬ জন, মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে ১১ হাজার ৯৭ জন এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে ৩৬৩ জন। আর অসদুপায় অবলম্বনের দায়ে বহিষ্কার করা হয়েছে ৫৪ জন পরীক্ষার্থীকে। এর আগে প্রথম দিন অর্থাৎ গত ১৫ সেপ্টেম্বর অনুপস্থিত ছিল ৩৩ হাজার ৮৬০ জন, দ্বিতীয় দিন (১৭ সেপ্টেম্বর) ৩৩ হাজার ৪৭৯ জন পরীক্ষার্থী। আর তৃতীয় দিন (১৯ সেপ্টেম্বর) অনুপস্থিত ছিলেন ৩২ হাজার ৫৯১ জন পরীক্ষার্থী।
মঙ্গলবার আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক তপন কুমার সরকারের সই করা সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এ তথ্য জানা যায়।
এ দিন দেশের ৩ হাজার ৭৯টি কেন্দ্রে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ১৭ লাখ ৮৬ হাজার ৭৭২ জন। এর মধ্যে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে ১৭ লাখ ৫৯ হাজার ২৭৬ জন। এই হিসেবে অনুপস্থিত ছিল ২৭ হাজার ৪৯৬ জন, শতাংশের হিসেবে যা ১ দশমিক ৫৪ শতাংশ।
অসদুপায় অবলম্বনের দায়ে ঢাকা বোর্ডে ৬ জন, কুমিল­া বোর্ডে ৫ জন, চট্টগ্রাম বোর্ডে ৫ জন, সিলেট বোর্ড ১ জন, বরিশাল বোর্ডে ১২, দিনাজপুর বোর্ডে ৫ জন, ময়মনসিংহ বোর্ডে ৪ জন এবং মাদ্রাসা বোর্ডে ২০ জন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।
সাধারণত এসএসসি পরীক্ষা ফেব্র“য়ারিতে শুরু হয়। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে নির্ধারিত সময়ে এ পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হয়নি। পিছিয়ে যাওয়া এ পরীক্ষা গত ১৯ জুন শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সিলেটসহ কয়েকটি জেলায় ব্যাপক বন্যা দেখা দিলে গত ১৭ জুন পরীক্ষা স্থগিত করে সরকার। এর আগে গত বছর নয় মাস পিছিয়ে নভেম্বরে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে তিন বিষয়ে এ পরীক্ষা নেওয়া হয়।
এবারের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ২০ লাখ ২১ হাজার ৮৬৮ জন। ৩ হাজার ৭৯০টি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এ পরীক্ষা। এতে অংশ নিচ্ছে ২৯ হাজার ৫৯১টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পরীক্ষার্থীরা। এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে পুনর্বিন্যস্ত পাঠ্যসূচি অনুযায়ী। ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এবং বিজ্ঞান সব বিষয়ের পরীক্ষা না নিয়ে সাবজেক্ট ম্যাপিংয়ের মাধ্যমে মূল্যায়ন করা হবে।

প্রিন্ট

আরও সংবাদ