খুলনা | মঙ্গলবার | ০৪ অক্টোবর ২০২২ | ১৯ আশ্বিন ১৪২৯

অনিশ্চয়তার মুখে আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সম্প্রচার

ক্রীড়া প্রতিবেদক |
১২:৫৫ এ.এম | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২


টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ কড়া নাড়ছে দুয়ারে। আগামী ১৬ অক্টোবর শুরু হবে ছোট ফরম্যাটের বিশ্বসেরা হওয়ার লড়াই। ২২ গজের ধুন্ধুমার বিশ্বকাপের উত্তেজনা ছড়িয়েছে অলিতে-গলিতে, পাড়া-মহল­ায় বা চায়ের দোকানে। টিভি বা মুঠোফোনে এই রোমাঞ্চ দেখতে অপেক্ষার প্রহর গুণছে সবাই। এমন অবস্থায় অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের স¤প্রচার নিয়ে। ব্যাংকিং জটিলতায় আশঙ্কার মেঘে ঢাকা পড়েছে দেশে বিশ্বকাপের সম্প্রচার।  
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, টাকা পাঠানোর ছাড়পত্র না পাওয়ায় এই সংকট তৈরি হয়েছে। বৈশ্বিক ডলার সংকট কাটিয়ে উঠতে দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের দেওয়া সব শর্ত পূরণ করেও বাংলাদেশ ব্যাংকের ছাড়পত্র বা ‘লেটার অব ইন্টেন্ট’ না পাওয়ায় খেলার স¤প্রচারস্বত্ব কিনতে পারছে না দেশীয় প্রতিষ্ঠানগুলো। এই অবস্থায় বিশ্বকাপ সম্প্রচারে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে দেশীয় টিভি চ্যানেলগুলোও। 
এর ফলে বিশ্বকাপের রোমাঞ্চ থেকে বঞ্চিত হতে পারেন দেশের কোটি ক্রিকেট ভক্ত। পছন্দের সাকিব-লিটনদের খেলা দেখার সম্ভাবনা দিনদিন মলিন হয়ে যাচ্ছে স¤প্রচার অনিশ্চয়তায়। শুধু তাই নয়, এখাত থেকে আসা বিশাল পরিমাণে রাজস্ব হারাতে পারে বাংলাদেশ সরকারও। 
বিশ্ব-ক্রিকেটের বড় বড় টুর্নামেন্টের সম্প্রচার বাজার থেকে প্রতিবছর কোটি কোটি টাকা রাজস্ব পায় সরকার। গত দুই বছরে এই রাজস্ব আয় বেড়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের অভ্যন্তরীণ সূত্র অনুসারে, ২০২০-২১ এবং ২০২১-২০২২ অর্থবছরে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ এর মতো আন্তর্জাতিক খেলা সম্প্রচারের জন্য বাংলাদেশ সরকারকে কয়েক কোটি টাকা রাজস্ব দিয়েছে স্টার স্পোর্টস এবং সনি পিকচার্স নেটওয়ার্ক।
উলে­খ্য যে, বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রা বিভাগের সহায়তায় গুগল এবং ফেসবুকের মতো আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকেও বড় অঙ্কের রাজস্ব অর্জন করছে সরকার। আন্তর্জাতিক সম্প্রচারস্বত্বধারীদের কাছ থেকে এ রাজস্ব পেয়েছে এবং দেশের টিভি দর্শকরা এসব অনুষ্ঠানের নিরবচ্ছিন্ন লাইভ স¤প্রচার উপভোগ করছে।

প্রিন্ট

আরও সংবাদ