খুলনা | শনিবার | ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ | ২২ মাঘ ১৪২৯

আমলনামা দেখে নেওয়া হতে পারে সিদ্ধান্ত

নগর ও জেলা যুবলীগের সম্মেলন আজ কে হচ্ছেন সভাপতি ও সম্পাদক

আল মাহমুদ প্রিন্স |
০১:১৪ এ.এম | ২৪ জানুয়ারী ২০২৩


দীর্ঘ প্রতীক্ষার শেষ হচ্ছে আজ। নতুন নেতৃত্ব পাবে খুলনা মহানগর ও জেলা যুবলীগ। বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে আজ (মঙ্গলবার) অনুষ্ঠিত হচ্ছে নগর ও জেলা আওয়ামী যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন। সকাল ১০টায় নগরীর প্রাণকেন্দ্র শিববাড়ি মোড়ে এ সম্মেলনের উদ্বোধন করা হবে। দু’টি অধিবেশনের মধ্য দিয়ে সম্মেলনের সমাপ্তি হবে। আগামী তিন বছরের জন্য নগর ও জেলায় যোগ্য প্রার্থীর কাঁধে তুলে দেয়া হবে নতুন নেতৃত্ব। নগর যুবলীগে শীর্ষ দু’টি পদে নতুন নেতৃত্ব নিয়ে কোনো চমক না থাকলেও জেলায় নতুন নেতৃত্ব নিয়ে থাকতে পারে চমক। জনশ্র“তি রয়েছে জেলায় সাধারণ সম্পাদক পদে রয়েছে হেভিওয়েট তিন প্রার্থী। তবে আমলনামা দেখে নেওয়া হতে পারে সিদ্ধান্ত।  
দলীয় সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘ বিশ বছর পর এ সম্মেলন ঘিরে ক্ষমতাসীন দলের যুব সংগঠনের নেতা-কর্মীদের মধ্যে বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ। সর্বশেষ সংগঠনটির নেতারা প্রকাশ্যে নতুন নেতৃত্ব ঘোষণার খবরে নড়েচড়ে বসেছেন নেতৃত্ব প্রত্যাশীরা। 
কেন্দ্রীয় নেতাদের অভিমত, দীর্ঘদিনের পরীক্ষিত নেতারাই আগামী দিনে শীর্ষপদে স্থান পাবে। শীর্ষপদে মাদক ব্যবসায়ী, চাঁদাবাজ, ভূমিদস্যু ও বিতর্কিতরা কোনোভাবে ঠাঁই পাবেন না। খুলনা প্রেসক্লাবে গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে মতবিনিময় সভায় কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ এমন মন্তব্য করেন। জেলা কমিটিতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদ প্রত্যাশীদের তালিকা দীর্ঘ। যুবলীগের সাবেক নেতারা ছাড়াও এ পদ দু’টিতে উঠে এসেছে ছাত্রলীগের একাধিক সাবেক নেতাদের নাম। পদ পেতে ছুটছেন সংগঠনের নীতি নির্ধারণীদের দ্বারে দ্বারে। সব মিলিয়ে খুলনা জেলা যুবলীগে নতুন এক চমকের অপেক্ষা করছেন তৃণমূলের কর্মীরা। 
মহানগর কমিটিতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে একক প্রার্থী হলেও জেলায় দু’টি পদে ১৭ জন। নগর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে একক প্রার্থী যথাক্রমে বর্তমান আহবায়ক সফিকুর রহমান পলাশ ও বর্তমান যুগ্ম-আহবায়ক শেখ শাহজালাল হোসেন সুজন। ফলে সম্মেলনে নগর নেতৃত্ব অনেকটা নিশ্চিত হলেও জেলায় চমকের সম্ভাবনা রয়েছে। এমন কী জীবন বৃত্তান্ত জমা দেওয়ার বাইরের কেউ জেলার নেতৃত্বে আসা অসম্ভব নয় বলে ধারণা করছেন কেউ কেউ।
জেলায় সভাপতি পদে ছয়জন ও সাধারণ সম্পাদক পদে ১১ জন জীবন বৃত্তান্ত জমা দেন। সভাপতি পদ প্রত্যাশীরা হলেন বর্তমান জেলা কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অজিত বিশ্বাস, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সরদার জাকির হোসেন, খুলনা জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান চৌধুরী মোহাম্মদ রায়হান ফরিদ, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আরাফাত হোসেন পল্টু ও জসিম উদ্দিন বাবু, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান হাদীউজ্জামান হাদী।
এছাড়া সাধারণ সম্পাদক পদে জীবন বৃত্তান্ত জমা দেন ১১ জন। এরা হলেন বর্তমান জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবিএম কামরুজ্জামান, মোঃ হারুনার রশিদ, জেলা যুবলীগের সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মাহফুজুর রহমান সোহাগ, খুলনা মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি দেব দুলাল বাড়ই বাপ্পী, আব্দুল­াহ আল মামুন, জলিল তালুকদার, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ পারভেজ হাওলাদার, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুশফিকুর রহমান সাগর, ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সদস্য মোল­া কামরুল ইসলাম, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক তসলিম হুসাইন তাজ ও মোঃ আবু সাঈদুজ্জামান।  
ছাত্রলীগ সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কমিটির একাধিক নেতা জানান, যুবলীগ দেশের অন্যতম শীর্ষ সংগঠন। এখানে যোগ্য নেতাদের তালিকাও দীর্ঘ। ফলে সেখান নেতৃত্ব বাছাই জটিল। শুধু প্রচার-প্রচারণা দেখে নেতৃত্ব বাছাই হবে না। গোটা আমলনামা দেখে সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে তাঁরা খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের বিগত সম্মেলন ও কমিটির প্রসঙ্গ তুলে ধরেন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নেতা বলেন, জেলায় প্রত্যাশিত পদের আগ্রহী প্রার্থীতা ও প্রাপ্তিতে পরিবর্তন হতে পারে। কেউ সভাপতির চেয়ে আবেদন করে সাধারণ সম্পাদক হলেও অস্বাভাবিক হবে না। 
এদিকে আজ মঙ্গলবার সমাবেশের উদ্বোধন করবেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ। প্রধান অতিথি থাকবেন বঙ্গবন্ধুর ভ্রাতুষ্পুত্র, বাগেরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দিন এমপি। সম্মানিত অতিথি থাকবেন আ’লীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য পিযুষ কান্তি ভট্টাচার্য, নগর সভাপতি ও সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান, খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য সেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল। বিশেষ অতিথি থাকবেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা, জেলা সাধারণ সম্পাদক সুজিত অধিকারী, আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ সোহেল উদ্দিন। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তৃতা করবেন আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাঈনুল হোসেন খান। বিশেষ বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সুব্রত পাল, সাংগঠনিক সম্পাদক এড. ড. শামীম আল সোহাগ নগর যুবলীগের আহবায়ক সফিকুর রহমান পলাশ, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আক্তারুজ্জামান বাবু এমপিসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।
সম্মেলনে সভাপতিত্ব করবেন খুলনা জেলা যুব লীগের সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক মোঃ কামরুজ্জামান জামাল। গোটা অনুষ্ঠান পরিচালনা করবেন নগর যুবলীগের যুগ্ম-আহবায়ক শেখ শাহাজালাল হোসেন সুজন। শোক প্রস্তাব পাঠ করবেন বর্তমান জেলা যুবলীগের দপ্তর সম্পাদক আসাদুজ্জামান রিয়াজ। সম্মেলনে দ্বিতীয় পর্ব কাউন্সিল অধিবেশন নগরীর ইউনাইটেড ক্লাবে অনুষ্ঠিত হবে।

প্রিন্ট

আরও সংবাদ