খুলনা | শনিবার | ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ | ২২ মাঘ ১৪২৯

মোংলা বন্দরের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসা বশেমুরমেবি’র উপাচার্য

খবর বিজ্ঞপ্তি |
০১:৪০ এ.এম | ২৫ জানুয়ারী ২০২৩


বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম ইউনিভার্সিটিতে নতুন উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন মোংলা বন্দরের বর্তমান চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসা, ওএসপি, এনপিপি, আরসিডিএস, এএফডব্লিউসি, পিএসসি, পিএইচডি। তিনি বর্তমান উপাচার্য রিয়ার এডমিরাল (অবঃ) এম খালেদ ইকবালের স্থলাভিষিক্ত হবেন। 
রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসা ২৬ জানুয়ারি ১৯৮৫ সালে বাংলাদেশ নেভাল একাডেমিতে যোগদান করেন। অত্যন্ত দক্ষতা এবং সফলতার সাথে নৌবাহিনীর ৬টি যুদ্ধ জাহাজে অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন যার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত প্যাট্রল ক্রাফ্ট অফশোর, প্যাট্রল ভেসেল এবং সর্বাধুনিক যুদ্ধ জাহাজ বিএনএস বঙ্গবন্ধু। বানৌজা বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ নৌবাহিনীর প্রথম যুদ্ধজাহাজ যা তার অধিনায়কত্বে প্রধানমন্ত্রীর নিকট হতে ন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড বা জাতীয় পতাকা লাভ করেন ২০১৩ সালে। তিনি নৌ সদরদপ্তরে পরিকল্পনা, সাবমেরিন, নেভাল এভিয়েশন এবং সিগন্যালসহ ৪টি পরিদপ্তরের পরিচালকের দায়িত্ব একই সাথে সফলভাবে পালন করেছেন। তিনি চট্রগ্রামে অবস্থিত নৌবাহিনীর সবচেয়ে বড় নৌঘাঁটি বা নৌ জা ঈসা খাঁর অধিনায়কের দায়িত্ব অত্যন্ত সফলতার সাথে পালন করেছেন। খুলনা আঞ্চলিক নৌ কমান্ডের দায়িত্ব পালনকালে মহামান্য রাষ্ট্রপতির নিকট থেকে জাতীয় পতাকা অর্জন করেন।
তিনি গণচীন থেকে ক্ষেপনাস্ত্রের উপর প্রশিক্ষণ, ফ্রান্স থেকে নেভাল স্টাফ কোর্স, যুক্তরাজ্য থেকে রয়েল কলেজ অব ডিফেন্স স্টাডিজ (RCDS), যুক্তরাষ্ট্রের কেলিফোর্নিয়ায় Executive Decision Making Course  সম্পন্ন করেছেন। আফ্রিকার আইভোরিকোস্ট ও জাতিসংঘের পর্যবেক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন এবং ফোর্স কমান্ডারের প্রশংসাপত্র লাভ করেন। তিনি তার অসামান্য সাফল্য ও অবদানের জন্য নৌবাহিনী প্রধানের কাছ থেকে ৩ বার প্রশংসাপত্র লাভ করেছেন। নৌবাহিনী ও সামরিক বাহিনীর বিভিন্ন সময়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রবন্ধ, আদেশ ও পুস্তাকাদি রচনা করেছেন। 
অত্যন্ত কর্ম ব্যস্ততার মধ্যেও স¤প্রতি তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগে মেরিটাইম ডোমেন এ্যাওয়ারনেস: বাংলাদেশ প্রেক্ষাপট বিষয়ে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন।
নৌবাহিনীতে অসামান্য অবদানের জন্য রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসা ‘অসামান্য সেবা পদক’ ও বিশেষ পারদর্শিতার জন্য ‘নৌ পারদর্শিতা পদক’ লাভ করেন। তিনি জাতীয় শুদ্ধাচার ২০১৯ পদকও লাভ করেন। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী চেয়ারম্যান, মুক্তিযুদ্ধ এবং মুক্তিযোদ্ধাদের অবদানকে চির স্মরণীয় রাখতে মোংলা বন্দরে স্থাপন করেছেন স্বাধীনতা চত্বর যা গত ১৬ ডিসেম্বর ২০২২ বিজয় দিবসে মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে উদ্বোধন করেন। এছাড়াও ঐ একই দিনে তিনি ৪০ জন মুক্তিযোদ্ধাকে বিশেষ সম্মাননা এবং আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন।

প্রিন্ট

আরও সংবাদ