খুলনা | বৃহস্পতিবার | ২৫ এপ্রিল ২০২৪ | ১১ বৈশাখ ১৪৩১

মোংলা বন্দর জেটির সামনে ড্রেজার থেকে সিটকে পড়ে কর্মচারী নিহত, আহত ১

মোংলা প্রতিনিধি |
০১:৫৫ এ.এম | ১৯ মার্চ ২০২৩


মোংলা বন্দরের জেটি সংলগ্ন একটি ড্রেজারে কাজ করা অবস্থায় সিটকে নদীতে পড়ে এক কর্মচারী নিহত হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছে আরো এক কর্মচারী। নিহতের নাম নাঈম দেওয়ান (২৫)। বাড়ি মুন্সিগঞ্জ জেলায়। শনিবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বন্দরের ৫ নম্বর জেটি সংলগ্ন পশুর নদীতে পড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। রাত সাড়ে ৮টার দিকে ওই ড্রেজারের পাখায় জড়িয়ে থাকা অবস্থায় নাঈমের লাশ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। 
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে নৌপুলিশ ও মোংলা ইপিজেড ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের সিনিয়র ফায়ার স্টেশন কর্মকর্তা মোঃ আরদেশ আলী জানান, মোংলা বন্দরের জেটি এলাকা সার্বক্ষণিক সচল ও পণ্য বোঝাই দেশী-বিদেশী বাণিজ্যিক জাহাজ ভেড়ার লক্ষে গভীরতা বজায় রাখার জন্য ড্রেজিং করা হচ্ছে। ভাড়ায় নিয়োজিত এ জেড কোম্পানির ‘সিএসডি বোখারি’ নামের একটি ড্রেজারে কর্মচারী হিসেবে কাজ করতো নাঈম। শনিবার বিকেলে ওই ড্রেজারের পাখা পরিষ্কার করার সময় হঠাৎ শিকল ছিড়ে তার ওপর পাখাটি খুলে পড়লে নাঈম নদীতে ছিটকে পড়ে যায়। তৎক্ষণিক অনেক খোঁজ করেও সন্ধান মেলেনি তার। এ ঘটনায় বন্দর কর্তৃপক্ষ থেকে সন্ধ্যা ৭টায় তাদেরকে জানানো হলে নিখোঁজ নাঈমকে উদ্ধারে ঘটনাস্থলে যায় মোংলা বন্দর ও ইপিজেড ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা। প্রায় ৩ ঘন্টা খোঁজা-খুঁজির পর রাত সাড়ে ৮টার দিকে ড্রেজারের পাখায় জাড়ানো অবস্থায় নাঈমের লাশ উদ্ধার করে তারা। পরে নাঈমের লাশ মোংলা থানা পুলিশে হস্তান্তর করা হয়। এছাড়া আহত অন্য কর্মচারী মোঃ মাজেদ (৪৫) কে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে সুস্থ করা হয়েছে।
মোংলা নৌ-পুলিশের এসআই মোঃ মিন্টু হোসেন জানান, নিহত নাঈম বিকালে ড্রেজারে কাজ করছিল। হঠাৎ ওই ড্রেজারের পাখা নদীতে পড়ে গেলে সাথে সাথে নাঈম সিটকে নদীতে পরে নিহত হয়। রাত সাড়ে ৮টার দিকে তার লাশ উদ্ধার করে মোংলা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। মোংলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম বলেন, ড্রেজার কর্মচারীর লাশ উদ্ধার করে থানায় দেয়া হয়েছে। তবে এ ঘটনায় এখনও কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রিন্ট

আরও সংবাদ