খুলনা | বৃহস্পতিবার | ২৫ এপ্রিল ২০২৪ | ১১ বৈশাখ ১৪৩১

এ মামলায় কারাবন্দি ১৭ জন মুক্তি পাচ্ছেন না সহসা

বিএনপি নেতা হেলাল-তুহিন-বাপ্পিসহ উচ্চ আদালতে ৩৬ নেতার জামিন মঞ্জুর

নিজস্ব প্রতিবেদক |
০২:০৩ এ.এম | ২৫ মে ২০২৩


বিএনপি’র কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল, নগর বিএনপি’র সদস্য সচিব শফিকুল আলম তুহিন, জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব এস এম মনিরুল হাসান বাপ্পীসহ ৩৬ নেতা-কর্মীর আগাম জামিন মঞ্জুর করেছে উচ্চ আদালত। গতকাল বুধবার বিএনপি নেতা-কর্মীদের করা আবেদনের শুনানি শেষে সুপ্রীমকোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশনের বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি মোঃ আমিনুল ইসলামের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। 
গত ১৯ মে খুলনা প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপি’র বিক্ষোভ সমাবেশে পুলিশের সাথে সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশের দায়েরকৃত মামলায় আগাম জমিন লাভ করলেন নেতা-কর্মীরা। তবে এ মামলায় গ্রেফতার হয়ে জেলহাজতে থাকা ১৭ জন নেতা-কর্মী সহসাই মুক্তি পাচ্ছেন না বলে জানিয়েছে দলটি।
বিএনপি নেতা-কর্মীদের পক্ষে আদালতে জামিন আবেদনের শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী নিতাই রায় চৌধুরী ও মিথুন রায় চৌধুরী।
জানা গেছে, গত ১৯ মে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে খুলনা প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপি নেতা-কর্মীরা জড়ো হয়ে সমাবেশ শুরু করে। বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক মন্ত্রী আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বক্তৃতা শুরুর আগেই বিনা উস্কানিতে পুলিশ বিএনপি নেতা-কর্মীদের ওপর টিয়ারশেল, গুলিবর্ষণ, লাঠিচার্জ শুরু করে সমাবেশকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় ১৩ জন নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করে। ওই ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে বিএনপি’র ৪৯ নেতা-কর্মীর নাম উলে­খসহ ১৩শ’ নেতা-কর্মীর নামে মামলা দায়ের করে। মামলার শুনানি শেষে আদালত তাদের ছয় সপ্তাহের জামিন দেন। একইসঙ্গে এ সময়ের মধ্যে তাদের নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন আইনজীবীরা। 
জামিনপ্রাপ্ত অন্যন্যরা হলেন জেলা বিএনপি’র যুগ্ম-আহবায়ক খান জুলফিকার আলী জুলু ও আবু হোসেন বাবু, নগর যুগ্ম-আহবায়ক মাসুদ পারভেজ বাবু, শেখ সাদী, চৌধুরী হাসানুর রশিদ মিরাজ, একরামুল হক হেলাল ও মাহবুব হাসান পিয়ারু, যুবদলের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি নগর শাখার সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হুদা চৌধুরী সাগর, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক এবাদুল হক রুবায়েত, বিএনপি নেতা কে এম হুমায়ুন কবির, মোঃ ফরিদ আহমেদ মোল­া, খন্দকার হাসিনুল ইসলাম নিক, মোঃ জাবেদ মলি­ক, আব্দুল­াহিল কাফি সখা, হেলাল আহমেদ সুমন, মোঃ ইস্তিয়াক আহমেদ ইস্তি, আব্দুল মান্নান মিস্ত্রি, তাজিম বিশ্বাস, শফিকুল ইসলাম শফি, কিমিয়া সাদাত, গাউস কুলি গাউস, মোঃ রবি, মোঃ জামাল, মোঃ নাসিম, মোঃ বেলায়েত শেখ, শেখ সাইফুল­াহ, সোহেল শেখ, মফিজুর রহমান, মোঃ জিয়াউর রহমান জিয়া, আসাদুজ্জামান মিঠু, হাফিজুর রহমান মনি, আল-আমিন সজল ও সেরাজ।
খুলনা জেলা কারাগারে বন্দি এ মামলায় ১৪ জনের জামিন প্রসঙ্গে নগর বিএনপি’র দপ্তরে দায়িত্বপ্রাপ্ত শরিফুল ইসলাম টিপু বলেন, ‘ওইদিন ঘটনাস্থল থেকে ১৩ জনকে আটক করেছিল পুলিশ। মামলা দায়েরের পর আরও ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়। এ মামলায় এখন পর্যন্ত ১৭জন কারান্তরীণ। খুলনা মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে এ মামলায় কারাবন্দি ১৭ জনের জামিন আবেদন করেছিলাম। কিন্তু জামিন নামঞ্জুর করেন আদালত। এখন উচ্চ আদালতে তাদের জামিনের আবেদন করা হবে।’

প্রিন্ট

আরও সংবাদ