খুলনা | বুধবার | ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮ ফাল্গুন ১৪৩০

ইতিহাসে বেইমান, বিশ্বাসঘাতক ও মীরজাফর হিসেবে উচ্চারিত হবে : রিজভি

কেসিসি নির্বাচনে অংশ নেয়ায় মাজেদাসহ বিএনপি’র ৯ নেতাকে আজীবন বহিষ্কার

নিজস্ব প্রতিবেদক |
১১:২৭ পি.এম | ০৩ জুন ২০২৩


দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে খুলনা সিটি করপোরেশন (কেসিসি) নির্বাচনে অংশগ্রহণ করায় সাবেক-বর্তমান নয়জন নেতাকে আজীবন বহিষ্কার করা হয়েছে। গতকাল শনিবার দলটির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব এড. রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত পত্রে তাদের বহিষ্কার করা হয়। গত বৃহস্পতিবার ২৪ ঘন্টা জবাবের সময়সীমা বেঁধে দিয়ে কারণদর্শাও নোটিশ দেয় কেন্দ্র। এসব নেতাদের আজীবন বহিষ্কারের তথ্য নিশ্চিত করেন খুলনা মহানগর বিএনপি’র আহবায়ক এড. এসএম শফিকুল আলম মনা।
আজীবন বহিস্কারকৃতরা হলেন নগরীর ৯নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডের প্রার্থী মহানগর বিএনপি’র সাবেক সমবায় বিষয়ক সম্পাদক মাজেদা খাতুন, ৫নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী নগর বিএনপি’র আহবায়ক কমিটির সদস্য শেখ সাজ্জাদ হোসেন তোতন, ১৯নং ওয়ার্ডের প্রার্থী নগর বিএনপি’র আহবায়ক কমিটির সদস্য আশফাকুর রহমান কাকন, ২২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী নগর বিএনপি’র সাবেক যুগ্ম-সম্পাদক মাহবুব কায়সার, ৯নং ওয়ার্ডে নগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক যুগ্ম-আহবায়ক কাজী ফজলুল কবীর টিটো, ১৮নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী সাবেক ছাত্রদল নেতা ইমরান হোসেন, ৩০নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর মুহাম্মদ আমানউল­াহ আমান, ১৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী দৌলতপুর থানা বিএনপি’র সাবেক যুগ্ম-সম্পাদক এ কে এম মোসফেকুস সালেহীন পাইলট এবং মহানগর তাঁতী দলের যুগ্ম-আহবায়ক দেলোয়ার মাতুব্বর।
আজীবন বহিস্কার পত্রে বলা হয়েছে, আগামী ১২ জুন অনুষ্ঠিতব্য খুলনা সিটি কর্পোরেশন এর প্রহসনের নির্বাচনে কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে আপনি প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন। দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার জন্য আপনাকে গত ১ জুন কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদান করা হয়। কিন্তু নির্ধারিত সময় অতিক্রান্ত করলেও আপনি কারণ দর্শানো নোটিশের জবাব দেননি-যা গুরুতর অসদাচরণ। নির্বাচনে প্রার্থীতা প্রত্যাহার না করে গত ১৫ বছর ধরে চলমান গণতান্ত্রিক আন্দোলনে অত্যাচারী শাসকগোষ্ঠীর দ্বারা যারা গুম-খুন ও পৈশাচিক নিপীড়নের শিকার হয়েছেন তাদের পরিবারসহ দেশের গণতন্ত্রকামী বিপুল জনগোষ্ঠীর আকাক্সক্ষার প্রতি আপনি বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন। দলীয় সিদ্ধান্ত ও নির্দেশনাকে এহেন অবজ্ঞা ও ঔদ্ধত্যের জন্য বিএনপি’র গঠনতন্ত্রের বিধান অনুযায়ী দলের প্রাথমিক সদস্য পদসহ সকল পর্যায়ের পদ থেকে নির্দেশক্রমে আপনাকে আজীবনের জন্য বহিস্কার করা হলো। গণতন্ত্র উদ্ধারের ইতিহাসে আপনার নাম একজন বেইমান, বিশ্বাসঘাতক ও মীরজাফর হিসেবে উচ্চারিত হবে বলে বহিস্কারপত্রের শেষাংশে উলে­খ করেছেন এড. রুহুল কবির রিজভী।

প্রিন্ট

আরও সংবাদ