খুলনা | সোমবার | ২২ জুলাই ২০২৪ | ৭ শ্রাবণ ১৪৩১

সব জেলাতেই ছড়িয়ে পড়েছে ডেঙ্গু, সবাই মিলেই নিয়ন্ত্রণ করতে হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

খবর প্রতিবেদন |
০৪:৫৩ পি.এম | ০৭ অগাস্ট ২০২৩


এডিস মশাবাহী ডেঙ্গু দেশের সব জেলাতেই ছড়িয়ে পড়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। সরকার বা মন্ত্রণালয়ের একার পক্ষে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণ সম্ভব নয় জানিয়ে সবাইকে নিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার কথা জানিয়েছেন মন্ত্রী।

আজ সোমবার (৭ আগস্ট) দুপুরে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

দেশের সব জেলাতেই ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এডিস মশা নিধন কার্যক্রম শুধু ঢাকাতেই পরিচালনা করলে হবে না, সারাদেশেই এটি জোরদার করতে হবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ডেঙ্গু রোগী বাড়ার বিবেচনায় মৃত্যু বাড়ছে। স্যালাইনের প্রয়োজনও বাড়ছে। প্রতিদিন গড়ে ৪০ হাজার ব্যাগ স্যালাইন লাগছে। হাসপাতালগুলো হিমশিম খেলেও চিকিৎসায় কোনো ঘাটতি পড়ছে না। ডেঙ্গু মৌসুমে ঝুঁকি বাড়লেও আশা করা যায় সরকার সামাল দিতে পারবে।

জাহিদ মালেক বলেন, ডেঙ্গু সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ একটি মাল্টিসেক্টরাল অ্যাপ্রোচ। এটি কারো একার পক্ষে নিয়ন্ত্রণ সম্ভব নয়। কাজেই আমাদের সবাইকে মিলেই ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে কাজ করতে হবে।

সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, আমরা সচেতনতার পাশাপাশি চিকিৎসাসেবা দিয়ে যাচ্ছি। আমরা জনগণকে ডেঙ্গু সম্পর্কে অভিহিত করছি, ডেঙ্গু কোথা থেকে আসে, কীভাবে প্রতিহত করা যায়- এ বিষয়গুলো জানাচ্ছি। সিটি করপোরেশন এবং স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় কাজ করছে।

মন্ত্রী বলেন, এখন সারা বাংলাদেশে মশা নিধন কার্যক্রমটা হওয়া উচিত। এমনকি শুধু এই সিজনটাতেই নয়, সারা বছরই মশা নিধন কার্যক্রমটা চলমান থাকা প্রয়োজন।

জাহিদ মালেক জানান, ডেঙ্গুর টিকা এখনো প্রক্রিয়াধীন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদনের পরপরই ডেঙ্গুর টিকা আনার চেষ্টা করা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী জানান, নারীদের জরায়ুর ক্যানসার রোধে হিউম্যান পেপিলোমা ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। সেপ্টেম্বরে শুরু হবে এই টিকাদান কর্মসূচি। ১০ থেকে ১৪ বছর বয়সী মেয়েদের টিকা দেওয়া হবে। এ পর্যন্ত সাড়ে ২৩ লাখ ডোজ এসেছে। নভেম্বর থেকে আরও আসবে।

প্রিন্ট

আরও সংবাদ