খুলনা | শুক্রবার | ২৬ জুলাই ২০২৪ | ১০ শ্রাবণ ১৪৩১

এশার সঙ্গে বিচ্ছেদের কারণ জানিয়ে ১৪ মিনিটের ভিডিও বার্তা রাফসানের

খবর বিনোদন |
০২:৩৫ পি.এম | ১৪ নভেম্বর ২০২৩


জনপ্রিয় উপস্থাপক রাফসান সাবাবের ঘর ভাঙার পর থেকেই সামাজিক মাধ্যম উত্তাল। অনেকের মন্তব্য, কণ্ঠশিল্পী জেফারের সঙ্গে প্রেম করছেন রাফসান। সেকারণেই স্ত্রী সানিয়া এশাকে তালাক দিয়েছেন তিনি। সেইসঙ্গে বর্ণবাদী আচরণেরও শিকার হতে হচ্ছে তাকে। এবার বিষয়টি নিয়ে সরব হলেন রাফসান।

গতকাল সোমবার দিবাগত রাতে নিজের সোশ্যাল হ্যান্ডেলে ১৪ মিনিটের এক ভিডিও বার্তা দেন রাফসান। সেখানে বলেন, ‘ডিভোর্সের ঘোষণা দেওয়ার পর থেকে অনলাইনে গত তিন দিন ধরে যতভাবে আমাকে বুলিং, নেগেটিভ কথাবার্তা, যা-তা ভাবে অপমান, যত ধরনের অভিযোগ দেওয়া হয়েছে আমি সব কিছুর জন্য এত দিন নীরব ছিলাম। কারণ আমি আমার পোস্টে লিখেছিলাম, আমাদের একসঙ্গে তিন বছরের পথ চলার শেষটা আমি চাই সম্মানজনকভাবেই হোক।’

এরপর তিনি বলেন, ‘আসলে একটা ডিভোর্স দুজন মানুষের জন্য খুব কঠিন এবং এটা একটা ব্যক্তিগত বিষয়। আমি কখনও চাইনি কাদা ছোড়াছুড়ির মাধ্যমে, দোষারোপ করার মাধ্যমে সম্পর্কটা শেষ হোক। আমার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে এত আলোচনা হোক আমি তা চাইনি।’

এরপর প্রাক্তন স্ত্রী এশার পোস্টে ভুল তথ্য ছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘পোস্টের পর থেকে সবাই ডিভোর্সের কারণ খুঁজতে থাকেন। গতকাল আমার সাবেক স্ত্রী একটা পোস্ট দেয়, যেখানে অনেক ভুল তথ্য দেওয়া আছে। যার জন্য আমার আজকের এই ভিডিও বার্তা বা স্টেটমেন্ট।

এ তারকা আরও বলেন, ‘আমার স্ত্রী তার স্ট্যাটাসে লিখেছে, এটা মিউচুয়াল ডিভোর্স ছিল না। সে চায়নি এই ডিভোর্সটা হোক। এখানে একটা ব্যাখ্যা দেওয়া দরকার আমিও এই বিয়ে নিয়ে সিরিয়াস ছিলাম। আমার বিয়েটা তিন বছর আগে হয়, আর এটা লাভ ম্যারেজ ছিল। আমি আমার পরিবারকে রাজি করিয়ে একটি বড় অনুষ্ঠান করে বিয়েটা করি। সেই জায়গা থেকে যখন আমি ডিভোর্স চাই এবং এই বিয়েটা থেকে বের হতে চাই, এর পেছনে অনেক ধরনের কারণ রয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আমাদের বিয়েটা তিন বছর আগে হলেও আমি আরো দেড় বছর আগে এই ডিভোর্সটা চেয়েছিলাম। হঠাৎ করেই কিন্তু ডিভোর্সটা হয়নি যে ঘুম থেকে উঠলাম আর একটা স্ট্যাটাস দিয়ে দিলাম। এটা আরো দেড় বছর আগে থেকেই আমি চাচ্ছিলাম।’

ভিডিওবার্তায় বিচ্ছেদের কারণ জানান রাফসান। তিনি বলেন, ‘যখন একজন মানুষ আরেকজনকে পছন্দ করে বিয়ে করে, বিয়ে করার পর নানা ধরনের সমস্যা, অমিল, প্রত্যাশা বেড়ে যায়। আমি অনেক বিষয় নিয়ে খুশি ছিলাম না, সেটা আমার কাজ নিয়ে হোক অথবা আমার বাবা-মায়ের সঙ্গে কোনো ইস্যু হোক। আমি আমার বিয়েতে খুশি ছিলাম না। আমার জন্য এই জায়গাটা কখনো সুখের ছিল না। যার জন্য আমি এই বিয়ে থেকে বের হতে চেয়েছি।’

সবশেষে রাফসান বলেন, ‘কারও কারণে আমার সংসার ভাঙেনি, কারও  সঙ্গে যদি আমাকে পাবলিক প্লেসে দেখা যায়, তাকে জড়িয়ে আমাকে নিয়ে নানা কথা বলা হয় এটাও সঠিক নয়। আমার সংসার ভাঙছে- সেই দোষটা শুধু আমার ওপরই দেন। আমি  এই যন্ত্রণাময় সম্পর্ক থেকে বের হতে চেয়েছি। তাই ডিভোর্স দিয়েছি।’

এশা পেশায় চিকিৎসক। ২০২০ সালের অক্টোবরে তার সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছিলেন রাফসান-এশা। বেশ আয়োজন করেই হয়েছিল সে বিয়ে। 

প্রিন্ট

আরও সংবাদ