খুলনা | সোমবার | ১৭ জুন ২০২৪ | ৩ আষাঢ় ১৪৩১

ক্রিকেট প্রেমীদের নজর এখন নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে

ক্রীড়া প্রতিবেদক |
১২:০৪ এ.এম | ১৮ নভেম্বর ২০২৩


যেখান থেকে শুরু, সেখান থেকেই শেষ! বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রিকেট স্টেডিয়াম আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি ক্রিকেট স্টেডিয়াম। এই মাঠেই গত ৫ অক্টোবর গেল আসরের দুই ফাইনালিস্ট ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার ম্যাচ নিয়ে পর্দা উঠেছিল ১৩তম ওয়ানডে বিশ্বকাপের। আগামী ১৯ নভেম্বর এই মাঠেই পর্দা নামতে যাচ্ছে চলমান বিশ্বকাপের। বিশ্বকাপের কোনো উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হয়নি। ফাইনালে সমাপ্তি অনুষ্ঠান হবে তো? এমন সব প্রশ্নই ঘুরছে চারদিকে।
তবে বিষয়টি নিয়ে মুখে কুলুপ এঁটে বসে আছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। এমনকি বিশ্ব ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসিও এ বিষয়ে কিছুই এখনো জানায়নি। তাতে কী? স্বাগতিকেরা ফাইনালে উঠেছে, এটাই দেশটির দর্শকদের জন্য বড় আগ্রহ। তাই তাদের সমর্থন দিতে বিভিন্ন জায়গা থেকে সমর্থকেরা এসে আগে ভাগেই আহমেদাবাদে উপস্থিত হচ্ছেন।
বলা যায়, ভারতে এবার রং ছাড়া বিশ্বকাপ দেখলো ক্রিকেট বিশ্ব। উদ্বোধনী ম্যাচ কিংবা বড় বড় দলের খেলা কোনোটাতেই যেন বিশ্বকাপের আমেজ দেখা যাচ্ছিল না। স্টেডিয়ামে দর্শকের উপস্থিতিও ছিল কম। তবে ব্যতিক্রম ছিল শুধু স্বাগতিক ম্যাচগুলোই। আসরে এখন পর্যন্ত ভারতের ১০টি ম্যাচের সবগুলোই ছিল স্টেডিয়ামে দর্শক দিয়ে কানায় কানায় পরিপূর্ণ। এছাড়া গেল ১৪ অক্টোবর বিশ্বকাপের হাইভোল্টেজ ম্যাচে ভারত-পাকিস্তান লড়াইয়ের আগে তো বিশাল আয়োজন করে বিসিসিআই।
এবার ফাইনালেও উঠেছে স্বাগতিকেরা। সেই ম্যাচ নিয়ে দলটির সমর্থকদেরও আগ্রহের শেষ নেই। বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। ইতিমধ্যে নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামের আশপাশ এলাকায় শুরু হয়ে গেছে বিশ্বকাপ ফাইনালের আমেজ। এই ম্যাচ দেখতে আসা দর্শক স্টেডিয়ামের আশপাশের হোটেলগুলো বুকিং নিচ্ছেন। তবে তা নির্ধারিত দামের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি দিয়ে।
ঘরের মাটিতে বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলবে ভারত। তাই এই ম্যাচের সাক্ষী হতে নির্ধারিত দামের চেয়ে বেশি দাম দিয়ে টিকিট কিনছেন ক্রিকেট-পাগল সমর্থকেরা। শুধু ভারত নয়, গোটা বিশ্ব থেকে ক্রিকেট-পাগল দর্শক আসতে শুরু করেছে শহরটিতে।
জানা গেছে, রোববার অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ফাইনাল ম্যাচের আগে দিলি­ থেকে আমেদাবাদ, মুম্বাই থেকে আমেদাবাদ, এমনকি কলকাতা থেকে আমেদাবাদের বিমান ভাড়া ১৫ থেকে ১৮ হাজার টাকা হয়ে গেছে। এছাড়া এক রাতের হোটেল ভাড়া ৬০ হাজার থেকে আড়াই লাখ টাকা পর্যন্ত উঠছে।
আর পাঁচ তারকা হোটেলে রুমের দাম তো সমর্থকদের ধরাছোঁয়ার বাইরে। বিভিন্ন বুকিং অ্যাপ সূত্রে জানা গেছে, বুধবার ওয়াংখেড়েতে ভারত এক যুগ পর ফাইনাল নিশ্চিত করার পর থেকেই হোটেলে রুম বুক করার ধুম পড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই আমেদাবাদের অর্ধেক বড়-ছোট-মাঝারি হোটেল প্রায় পূর্ণ হয়ে গেছে।
 

প্রিন্ট

আরও সংবাদ