খুলনা | বৃহস্পতিবার | ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯ ফাল্গুন ১৪৩০

মোংলা বন্দরের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

সবার মাঝে দেশের উন্নয়নে কাজ করার মানসিকতা থাকা দরকার : সিটি মেয়র

তথ্য বিবরণী |
০৫:১৮ পি.এম | ০১ ডিসেম্বর ২০২৩


আলোচনা সভা, বেলুন উড়িয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর উদ্বোধন, কেককাটা, বন্দর ব্যবহারকারী ও কৃতিত্বপূর্ণ কাজের জন্য কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সংবর্ধনা ও সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান, বিদায়ী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সংবর্ধনা, কর্র্মকর্তা-কর্মচারীদের শুভেচ্ছা উপহার, দোয়া অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন কর্মসূর্চির মধ্য দিয়ে মোংলা বন্দরের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করা হয়।

এ উপলক্ষ্যে আজ শুক্রবার (০১ ডিসেম্বর) সকালে মোংলা বন্দরের স্টাফিং এন্ড আনস্টাফিং শেড এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক।

প্রধান অতিথি তাঁর বক্তৃতায় বলেন, বিগত সরকারগুলোর অবহেলার কারণে মোংলা বন্দরের উন্নয়ন মুখ থুবড়ে পড়েছিলো। আওয়ামী লীগ সরকার ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর নতুন করে মোংলা বন্দর সচল করার পদক্ষেপ নেয়। এক সময়ের মৃতপ্রায় মোংলা বন্দর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে আজ ঘুরে দাঁড়িয়েছে। দক্ষিণাঞ্চলের ব্যবসা-বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে মোংলা বন্দর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। পদ্মাসেতু উদ্বোধনের পর এই বন্দরের কর্মব্যবস্ততা কয়েকগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি আরও বলেন, বন্দরে সাড়ে ছয় হাজার কোটি টাকায় প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। সরকার ২০০৯ সালে ক্ষমতায় আসার পরে চার হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে খুলনা-মোংলা রেলপথ নির্মাণ করেছে। এ অঞ্চলের পরিবর্তন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারণে। সবার মাঝে দেশের উন্নয়নে কাজ করার মানসিকতা থাকা দরকার। প্রধানমন্ত্রীর নানা উদ্যোগের কারণে বাংলাদেশ আজ পৃথিবীর মাঝে উন্নয়নের রোলমডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত। মোংলা বন্দরের আরো উন্নয়নে যা যা করা দরকার সবকিছু করা হবে।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মীর এরশাদ আলীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন বাংলাদেশ শিপিং এজেন্টস এ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান ক্যাপ্টেন মোঃ রফিকুল ইসলাম, ওমেরা পেট্রোলিয়াম লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা তানজিম চৌধুরী ও মোংলা কাস্টমস এজেন্টস এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোঃ সুলতান হোসেন খান। স্বাগত বক্তৃতা করেন মোংলা বন্দরের পরিচালক (প্রশাসন) মোঃ শাহীনুর আলম। অনুষ্ঠানে মোংলা বন্দরের সিবিএর সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন চৌধুরী বক্তৃতা করেন। অনুষ্ঠানে মোংলা বন্দর ব্যবহারকারী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান জানান, মোংলা বন্দরে ড্রেজিং চলমান থাকার ফলে সম্প্রতি ৬০ হাজার ৫০০ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে প্রথমবারে লাইবেরিয়ান পতাকাবাহী জাহাজ এমভি মানা বন্দরে আগমন করে। প্রথমবারের মতো বন্দর জেটিতে ৮.৫ মিটার ড্রাফটের জাহাজ ভিড়েছে। ২০২২-২৩ অর্থবছরে এ বন্দরে ৮২৭টি বাণিজ্যিক জাহাজ আগমন করে ও ৯৯.০৫ লাখ মে.টন কার্গো, ২৬৫৮৩ টিইউজ কন্টেইনার হ্যাল্ডলিং এবং ১৩ হাজার ৫৭৬ টি গাড়ি আমদানি করে ৩০,২৪১,৬৮ কোটি টাকা রাজস্ব আয় করতে সক্ষম হয়েছে। বন্দরে পাঁচটি উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে।

অনুষ্ঠানে মেয়র বন্দর ব্যবহারকারী ২৭টি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের মাঝে সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদপত্র, কৃতিত্বপূর্ণ কাজের জন্য তিনজন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে সম্মানান ক্রেস্ট এবং পিআরএল এ থাকা ৭০জন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান এবং কর্র্মকর্তা-কর্মচারীদের শুভেচ্ছা উপহার প্রদান করেন।

প্রিন্ট

আরও সংবাদ